অসহায় অসুস্থ শান্তা ইসলামকে দেখতে হাসপাতেলে প্রবাসি সুশিল সমাজ লেবানন

shanta picসময় বাংলা, লেবানন: বেশ কয়েক মাস ধরে অসুখে ভূগছেন লেবানন প্রবাসি নরসিংদির মেয়ে শান্তা ইসলাম, নিয়েছেন প্রাথমিক চিকিৎসা। প্রাথমিক চিকিৎসায় কোন কাজ না হওয়ায় দেশে যাবার পরিকল্পনা নিলেন,অন্য দিকে এক ডাক্টারের পরামর্শে সিটি স্কান করলে শান্তা ইসলামের লিভার এবং কিডনিতে সমস্যা ধরা পরে।

শান্তা ইসলাম লেবাননের বেশ কয়াকটা হাসপাতাল ঘুরেছেন চিকিৎসার উদ্দেশ্যে, কিন্তু অসহায় শান্তার চিকিৎসায় যা খরচ হবে তা তার কাছে নেই। শান্তার কাছে যা ছিল তা দিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসে দেশে যাবার জন্য নাম লিখিয়েছেন।ভিসা জটিলতায় থাকায় সাভাবিক ভাবে দেশে যেতে পারছেন না তিনি।

শান্তা বেশি অসুস্থ হয়ে পরলে গত শনিবার গ্রীনবাংলা স্পোর্টি ক্লাবের ম্যানেজার জালাল বেপারির সহযোগীতায় বৈরুত জেনারেল হসপিটালে ভর্তি হন শান্তা। খবর পেয়ে প্রবাসি সুশিল সমাজের সভাপতি সৈয়দ আমির হোসেনের নেতৃতে একটি টিম হাসপাতালে শান্তা ইসলামকে দেখতে যান। এবং  প্রবাসি সুশিল সমাজের পক্ষ থেকে নগদ ৩শ আমেরিকান ডলার প্রদান করেন। এবং আরো আর্থিক সহযোগিতার আশাস্ব দেন।

অন্যদিকে সাংবাদিক জসিম সরকার এবং প্রবাসি ইদ্রিস আলী শান্তাকে রক্তদান করেন।  আশরাফিয়া এলাকার মনির হোসেন ও রতন মিয়া, তারাও শান্তাকে আর্থিক সহযোগীতা করেন।

প্রবাসি সুশিল সমাজের পক্ষে আরো উপস্থিত ছিলেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমদ রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজাদ, প্রাক্তন প্রধান উপদেষ্টা মো. আব্দুল্লাহ তালুকদার।

শান্তার দেখাশুনার দায়িত্বে থাকা সেলিনা ও তার মা জানান, শান্তা মায়ের একমাত্র মেয়ে, জানিনা শান্তা বাঁচবে কিনা তবে দেশে শান্তার মায়ের সাথে কথা হয়, তিনি একটি বার মেয়ের মুখ দেখার অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। তারা আরো জানান, শান্তার আকামা নেই, দূতাবাসে তার দেশে যাবার জন্য টাকা জমা দিয়েছি।

অতি দ্রুত শান্তাকে দেশে পাঠাবার জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসকে অনুরুধ করেন তারা।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন