আপনারা যা পারেন তাই লেখেন, আমার কোন সমস্যা নেই: আনিপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক

Jhenidah Shailkupa anipur school Photo 02-08-16 (2)সময় বাংলা, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার আনিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপ-বৃত্তির টাকা কম দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা স্কুল ঘেরাও করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার আনিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩৯১ জন শিক্ষার্থীর বিপরীতে ১ লাখ ৪৫ হাজার উপ-বৃত্তির টাকা বরাদ্ধ হয়। বরাদ্দ আসার পর থেকেই অভিভাবকদের ডেকে টাকার অংক না বসিয়ে শীটে স্বাক্ষর করে নেয় প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক।

হাসিনা খাতুন নামের এক অভিভাবক জানান, তার মেয়ে আনিকা খাতুন ওই বিদ্যালয়ে ১ম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। ক’দিন আগে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক তাদেরকে ডেকে টাকার অংক না বসিয়ে শীটে সই করিয়ে নেয়। ছবিও নিয়েছিল ৮ কপি কিন্তু তার টাকা দেওয়া হয়নি।

পলি খাতুন নামের আর এক অভিভাবক জানান, তার মেয়ে তমা খাতুন ওই বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেণীতে পড়ে। উপ-বৃত্তির টাকা তাকেও দেওয়া হয়নি। একই গ্রামের ওলিয়ার রহমান জানান, তার ভাগ্নে ২য় শ্রেণীতে পড়ে। তার টাকা পাওয়ার কথা ছিল ১২’শ টাকা কিন্তুু সে পেয়েছে ৬’শ টাকা।

এমন অভিযোগ করেছেন ওই গ্রামের লাভলী খাতুন, রোজিনা খাতুনসহ অনেকে। অভিভাবকরা জানান, ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নানা অনিয়ম করে থাকেন। প্রমানিত হয়েছে উপ-বৃত্তির টাকা তিনি আত্মসাৎ করেছেন। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে অভিভাবকরা মঙ্গলবার স্কুলে গিয়ে প্রতবাদ করেন।

উপ-বৃত্তির টাকা কম দেওয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে মোবাইলে ফোনে তিনি বলেন, আপনারা যা পারেন তাই লেখেন, আমার কোন সমস্যা নেই। আমার তাতে কিছু যায় আসে না।

ঝিনাইদহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান বলেন, জেলায় অনেক স্কুল রয়েছে। তার মধ্যে ২/৪ টিতে সমস্যা হতেই পারে। তাই বলে নিউজ করা ঠিক হবে না।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর