ইনজুরিতে কেমন আছেন নাসির, তামিম, মিরাজরা

সময়বাংলা, খেলা: অবশেষে ধারণাটাই সত্যি হলো। এমআরআই রিপোর্ট বলছে লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে অলরাউন্ডার নাসির হোসেনের। অপারেশনের পর প্রায় ৪ থেকে ৫ মাস সময় লাগতে পারে সুস্থ হতে। জানিয়েছেন বিসিবি চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরী।

এদিকে, পেসার তাসকিন আহমেদের ব্যাক পেইন মারাত্মক না হওয়ায় অপারেশন ছাড়াই চিকিৎসা চলছে বলে জানিয়েছে তিনি। এছাড়া চলছে মেহেদী হাসান মিরাজের ইনজুরি’র চিকিৎসা।

ইনজুরি সমস্যা পিছু ছাড়ছে না টাইগার ক্রিকেটারদের। তামিমের ইনজুরির পুনর্বাসন চলছে। ইনজুরির তালিকায় নতুন নাম নাসির হোসেন। ইনজুরিটাও বেশ গুরুতর। ধারণা ছিলো হয়ত লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে নাসিরের। এমআরআই রিপোর্ট নিশ্চিত হয়েছে ধারণাটাই।

এসিএল লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে নাসির হোসেনের। এর আগে একবার মাশরাফিও পড়েছিলেন এই ইনজুরিতে। দ্রুত অস্ত্রোপচার করালেও, মাঠে ফেরা হচ্ছে না দ্রুত। যদিও এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি কোথায় হবে তার অস্ত্রোপচার।

বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘নাসিরের ডান হাঁটুর লিগামেন্ট ইনজুরির আশঙ্কা করা হচ্ছিলো যেটা এমআরআই করার পরে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগ করছি, কোথায় ওর অপারেশন করা যায়। মাস ছয়েকের মতো সময় লাগবে ওর খেলায় ফিরে আসতে।’

ইনজুরির এই তালিকার পুরনো নাম তামিম ইকবাল। রিহ্যাব প্রক্রিয়া চলমান লম্বা সময় ধরে। ব্যাটিং করতে সমস্যা না থাকলেও, রানিংটা এখনো ঠিক হয়নি তামিমের।

দেবাশিষ চৌধুরী বলেন, ‘তামিমের দুই তিনটা ইনজুরি মিলিয়ে যে অবস্থা, কিছু আছে হাঁটুর জয়েন্টের ভেতরে আবার কিছু আছে জয়েন্টের বাইরের সমস্যা। আমরা বাইরের সমস্যাগুলো নিয়ে কাজ করছি এবং এগুলোতে খুব ভালো উন্নতি হচ্ছে।’

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে তাসকিন কিংবা মিরাজের পারফরম্যান্স ছিলো খুব একটা নজরকাড়া। বিসিবি চিকিৎসক বলছেন ইনজুরির কারণেই হতে পারে এমনটা। তাসকিনকে নিয়ে কোনো শঙ্কা না থাকলেও, মিরাজকে নিয়ে কিছুটা চিন্তিত বিসিবি।

দেবাশিষ চৌধুরী বলেন, ‘মিরাজের কাঁধের ইনজুরি ছিলো এবং এটার চিকিৎসা চলছিলো। পরিস্থিতি মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে ছিলো তবে সম্প্রতি ওর থ্রোয়িংয়ে খুব সমস্যা হচ্ছিলো। এমআরআই করা হয়েছে, আগামী এক থেকে দু’মাস আমরা চেষ্টা করবো ইনজেকশন কিংবা ফিজিওথেরাপির মাধ্যমে এটাকে ম্যানেজ করার।’

তিনি আরও বলেন, ‘তাসকিনের ব্যাকপেইন একটা সমস্যা। পেস বোলারদের জন্য এটা সাধারণ একটা সমস্যা। ওর পরিস্থিতি ওই পর্যায়ে যায়নি যে কোন অস্ত্রোপচারের দরকার হবে।’

চলমান বিসিএল চলছে তপ্ত আবহাওয়ায়। গরমে সতর্ক থেকে খেলায় অংশ নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিসিবি চিকিৎসক।

 

সময়বাংলা/আইজু

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন