একতরফা নির্বাচনে মিসরের স্বৈরশাসক সিসি আবারও প্রেসিডেন্ট

সময়বাংলা ডেস্ক : মিসরের লোক দেখানো ও নিয়মরক্ষার নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি। নির্বাচনে ৯২ শতাংশ ভোট পেয়েছেন তিনি। তবে ভোট পড়েছে মোট ভোটারের মাত্র ৪০ শতাংশ।

দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমগুলো নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফলে সিসির জয়ের কথা জানিয়েছে। দেশটিতে সোমবার ভোট গ্রহণ শুরু হয়। তিন দিনব্যাপী এ ভোট গ্রহণ চলে বুধবার পর্যন্ত। এরপর শুরু হয় ভোট গণনা। খবর আলজাজিরার।

বৃহস্পতিবার সংবাদ সংস্থা মেনা ও আল আহরাম পত্রিকা তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, তিন দিনের নির্বাচনে নিবন্ধিত ৬ কোটি ভোটারের মধ্যে ২ কোটি ৩০ লাখ ভোটার ভোট দিয়েছে। এর ৯০ শতাংশই পেয়েছেন সিসি। সিসির একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী স্বল্প পরিচিত মুসা মোস্তফা মুসা পেয়েছেন মাত্র ৭ লাখ ২০ হাজার ভোট।

সিসির সমর্থক হিসেবে পরিচিত মুসা মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষদিন ২৯ জানুয়ারি প্রার্থিতার ঘোষণা দেন। এর ১০ দিন আগেও সিসির প্রার্থিতার জন্য প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিয়েছিলেন তিনি। বিশে্লষকদের অনেকেই তাকে ‘সিসির হাতের পুতুল’ বলে অভিহিত করেছেন। সিসিকে জেতাতেই তার ইশারায় নির্বাচনে প্রার্থী হন তিনি।

এবারের প্রসিডেন্ট নির্বাচনে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বীদের কেউ নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেননি। কাউকে জোর করে জেলে ঢুকিয়েছেন সিসি। কেউবা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছেন। ২০১৩ সালে এক সেনা অভু্যত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেন সিসি।

প্রথম কোনো গণতান্ত্রিক নির্বাচনে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করার বছর খানেক পর ২০১৪ সালে নির্বাচনের ডাক দেন এবং ৯৬.৯ শতাংশ ভোট পেয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

সমর্থকদের দাবি, ২০১১ সাল থেকে মিসরে যে অস্থিরতা চলছিল, তা থামিয়ে দেশে স্থিতিশীলতা এনেছেন সিসি। তবে সমালোচকদের দাবি, সিসি নিজেকে বিজয়ী করার মতো করে নির্বাচনী পরিস্থিতি তৈরি করেছেন এবং বিরোধীদের অংশগ্রহণকে বাধাগ্রস্ত করেছেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর