এবার কাতারের পক্ষে এরদোগান

সময় বাংলা ডেস্ক: সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকতার ধোঁয়া তুলে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করেছে সৌদি আরবসহ বিশ্বের ছয়টি দেশ। এর পর পরই সৌদি জোটকে পাশ কাটিয়ে দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের ঘোষণা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার দেশটির আনকারা শহরে একটি বক্তব্য দেওয়ার সময় এরদোয়ান এ ঘোষণা দেন বলে জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট জানান, কাতারের মতো ছোট একটি রাষ্ট্র সন্ত্রাসবাদের সমর্থন দেবে বলে ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বাস করেন না তিনি। তাই কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা ভালো হয়নি। এমনকি এর মাধ্যমে কোনো সমস্যার সমাধান হবে না বলে মন্তব্য করেন এরদোগান।

এ ছাড়া তুরস্ক ও তার বন্ধু রাষ্ট্রগুলো কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে কাজ চালিয়ে যাবে বলে উল্লেখ করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ‘কাতার সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জড়িত না, সেটা আমি ভালোভাবেই জানি। আর এমন ধরনের কোনো প্রমাণ পেলে আমিই সবার আগে দেশটির বিরুদ্ধে কথা বলব।’

এদিকে কাতারকে সমর্থন দিলেও সৌদি আরবের খুব কাছের বন্ধু বলেই পরিচিত তুরস্ক। এ ছাড়া কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপকারী দেশগুলোর সঙ্গে দেশটির সুসম্পর্ক রয়েছে।

অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির অভিযোগ এনে গত সোমবার কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দেয় সৌদি আরব, মিসর, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। কাতার মুসলিম ব্রাদারহুডসহ সন্ত্রাসী দলগুলোকে সমর্থন দিচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়। এর ফলে ভিন্নমুখী সংকটের মুখোমুখি হতে পারে মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম ধনী এ দেশটি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন