“এবার নিকৃষ্ট স্বৈরশাসকের তালিকায় প্রথম হলেন শেখ হাসিনা”

সময়বাংলা ডেস্ক: এবার বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে নিকৃষ্ট একনায়ক তথা স্বৈরাশাসকের তালিকায় প্রথম স্থান অর্জন করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জার্মানির নিকৃষ্ঠ স্বৈরশাসক এডলফ হিটলারকে পেছনে ফেলে শীর্ষস্থান অর্জন করেন তিনি।

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ও জনপ্রিয় জরিপভিত্তিক ওয়েবসাইট ‘দি টপটেনস’ এ একটি দীর্ঘমেয়াদী জরিপের মাধ্যমে সেরা স্বৈরাশাসক নির্বাচিত হন বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী। ওয়েবসাইটটি বিশ্বের ৫০ জন স্বৈরাশাসককে নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি একটি জরিপ পরিচালনা করে।

সেখানে দেখা গেছে, শতকরা সর্বোচ্চ ১৯ শতাংশ ভোট পেয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিকৃষ্ট স্বৈরশাসকের তালিকায় প্রথম স্থান অর্জন করেছেন। দ্বিতীয় স্থানে আছেন জার্মানির নিকৃষ্ট স্বৈরশাসক এডলফ হিটলার। তিনি পেয়েছেন ১৩ শতাংশ ভোট। ৯ শতাংশ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন তৎকালিন সোভিয়েত ইউনিয়নের স্বৈরশাসক জোসেফ স্টালিন।

এদিকে ৫০ জন নিকৃষ্ট স্বৈরশাসকের তালিকায় কেবল বাংলাদেশেরই ৩ জন স্বৈরশাসকের নাম রয়েছে। প্রথম স্থান অর্জনকারী শেখ হাসিনার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রয়েছেন তালিকার ২৩তম অবস্থানে। অন্যদিকে তালিকার শেষদিকে রয়েছে স্বৈরশাসক হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদের নাম। তার অবস্থান ৪৬তম।

জরিপটিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ অংশগ্রহন করেছেন। তারা ভোট দেয়ার পাশাপাশি স্বৈরাশাসকদের সম্পর্কে নানা ধরনের মন্তব্য করেছেন সেখানে। মন্তব্যে দেখা গেছে অন্যদের তুলনায় অত্যধিক পরিমানে মন্তব্য করা হয়েছে শেখ হাসিনার প্রতি। শেখ হাসিনার নামে যেখানে ২২০০ এর অধিক মন্তব্য পড়েছে, সেখানে দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী হিটলারের নামে পড়েছে মাত্র ২৬৩ টি মন্তব্য। শেখ হাসিনার প্রতি করা কয়েকটি মন্তব্য ভাষান্তর করে তুলে ধরা হলো:

শেখ হাসিনার নামে মন্তব্যের মধ্যে সর্বাধিক লাইক পাওয়া মন্তব্যটিতে একজন বলেছেন, ‘২০১৩ সালের ৫ মে রাত ৩ টায় মাত্র ৪৫ মিনিটে অজ্ঞাতনামা প্রায় ২৫০০ নিরস্ত্র জনতাকে হত্যা করেন শেখ হাসিনা। তার দলের নেতাকর্মী ও পুলিশ বাহিনী সরাসরি গুলি করে অসংখ্য নিরস্ত্র সাধারণ মানুষ ও বিক্ষোভকারীদের হত্যা করা হয়েছে, যারা তার সরকারের ভুলত্রুটি তুলে ধরে প্রতিবাদী হয়েছিলো।’

আরেকটি মন্তব্যে একজন লিখেছেন, ‘তিনি(শেখ হাসিনা) তার বাবার মত ক্ষমতা কুক্ষিগত করে আছেন। যেমন তার বাবা ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে মত প্রকাশের স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছিল। এমনকি সুশীল সমাজের যারা তার স্বৈরতন্ত্রের বিরুদ্ধে কথা বলেছে তিনি তাদেরকে পাগল বলে অভিহিত করছেন। শুধু তার কারণে আজ হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। তিনি সংবিধান পরিবর্তন করেছেন, অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন শুধুমাত্র ক্ষমতা দখলে রাখার জন্য।’

অন্য একটি মন্তব্যে শেখ হাসিনার প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে একজন লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি একজন জুডিশিয়াল কিলার। তিনি বিচার ব্যবস্থাকে ব্যবহার করে বিরোধী দলের কার্যক্রম সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিচ্ছেন। চিন্তার স্বাধীনতা, কথা বলার স্বাধীনতা, ভোটদানের স্বাধীনতা সব আজ তার কব্জায়। এদেশে আজ একটি মানুষও নিরাপদ নয়।’

৫০ জন স্বৈরশাসকের প্রায় সবার প্রতিই ক্ষোভ প্রকাশ করে এমন মন্তব্য করেছেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষজন। মন্তব্যগুলোতে তাদের কৃতকর্মের অনেক ভয়ংকর চিত্রই প্রকাশ পেয়েছে।

জরিপে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছেন যথাক্রমে চীনের মাও সে তুং, উত্তর কোরিয়ার কিম জং ইল। সিরিয়ার বাশার আল আসাদ রয়েছেন নবম স্থানে ও সাদ্দাম হোসেন দশম স্থানে। হোসনি মোবারক ১৫তম, মুসোলিনি ১৬তম, গাদ্দাফি ১৮তম স্থানে রয়েছেন।

পাকিস্তানের সাবেক স্বৈরশাসক ইয়াহিয়া খান রয়েছেন তালিকার ১৯তম স্থানে এবং পারভেজ মোশারফ রয়েছেন ৩৫তম স্থানে। সৌদি আরবের প্রিন্স আব্দুল্লাহ ৩৩তম স্থানে রয়েছেন। অন্যদিকে রাশিয়ার বর্তমান শাসক ভ্লাদিমির পুতিন রয়েছেন তালিকার ৪২তম স্থানে আর ভারতের ইন্দিরা গান্ধির অবস্থান ৪৪তম।

নিকৃষ্ট স্বৈরশাসকদের পূর্ণ তালিকাটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন: Top 10 Worst Dictators In History

https://www.thetoptens.com/worst-dictators/

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন