কানাডা প্রবাসী ড. তারেক আলী আর নেই, প্রবাসীদের মধ্যে শোকের ছায়া।

সিবিএনএ/সময় বাংলা কানাডাঃড. তারেক। ছবি দেশদিগন্ত 

কানাডার মন্ট্রিয়ল প্রবাসী বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, খ্যাতিনামা গণিতজ্ঞ এবং কনর্কডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অংক শ্রাস্ত্রের অধ্যাপক প্রবাসিদের প্রিয় ব্যক্তিত্ব ড. সাইয়েদ আলী আর নেই। গত রবিবার মালশিয়ায় একটি অংক বিষয়ক সেমিনারে যোগ দিতে গিয়ে সেখানেই মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহ…. রাজেউন)। মৃত্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৭২ বছর। মৃত্যুকালে তাঁর স্ত্রী বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ড. ফৌজিয়া আলী এবং একমাত্র পুত্র ড. নাবিল আলীসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন, ছাত্র-ছাত্রী, বন্ধু-বান্ধব, সহকর্মী এবং গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্য সংবাদ কানাডায় পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গে প্রবাসীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। শোক গাথা, শোক বাণী আর তাঁর বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া স্মৃতির ভান্ডার থেকে রকমারি ছবি এবং ভিডিও স্যোশাল মিডিয়ায় প্রকাশ করে বিনিম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে পোষ্ট দিচ্ছেন।

উল্লেখ্য, আমৃত্যু শিক্ষানুরাগী ড. তারেক ছিলেন একজন অত্যন্ত সজ্জন, নিরাহংকার, বিনয়ী, এবং দয়ালু ব্যক্তিত্ব হিসেবেই প্রবাসীদের মধ্যে সুপরিচিত ছিলেন। গনিত বিশেষজ্ঞ এই শিক্ষাবিদকে প্রবাসীদের প্রিয় ও পরিচিত স্বজন ছিলেন। মন্ট্রিয়লে প্রবাসীদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তিনি যোগ দিতেন। ড. তারেক সাইদ খ্যাতিনামা গনিতজ্ঞ হওয়াতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে  ভিজিটিং প্রফেসর হিসাবেও কাজ করতেন। এরই সুবাদে তিনি একটি আন্তর্জাতিক গণিত বিষয়ক সেমিনারে অংশ নিতে মালেশিয়ার কুয়ালালামপুরে গিয়েছিলেন। গণিত সম্মেলন চলাকালেই তিনি মৃত্যুবরন করেন। আজ  মালশিয়া থেকে তার মরদেহ কানাডার মন্ট্রিয়লে পৌঁছার কথা রয়েছে। তাঁর মরদেহ কানাডায় পৌঁছার পর পারিবারিক সিদ্ধান্তের মাধ্যমে নামাজে জানাজার সময় ও স্থান জানানো হবে বলে জানানো হয়েছে।

কানাডা প্রবাসী শিক্ষাবিদ, গণিতজ্ঞ ড. তারেক এর অকাল প্রয়াণে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছে। কানাডা-বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সী সিবিএনএ পরিবার তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক বিনম্র শ্রদ্ধা এবং পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেছে তাঁর অকাল প্রয়ানে প্রবাসীদের যে ক্ষতি হলো তা সহজে পূরণ হবার নয়।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন