“কোপ খেয়ে জাফর ইকবাল হাসে, কোপ দিয়ে আসামীও হাসে” রহস্য কি? চলুন আমরাও একটু হাসি

জাহিদ এফ সরদার সাদী: ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ)গিয়ে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালকে দেখে এসেছেন অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের মধ্যে সন্দেহভাজন জঙ্গি হামলায় আহত জাফর ইকবাল গত শনিবার রাত থেকে ঢাকা সিএমএইচের ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটিটে চিকিৎসাধীন।

তাকে দেখতে সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার পর হাসপাতালে যান প্রধানমন্ত্রী। তিনি এই জনপ্রিয় লেখকের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন এবং তার পাশে কিছু সময় কাটান। জাফর ইকবালের স্ত্রী অধ্যাপক ইয়াসমিন হক এবং মেয়ে ইয়েশিম ইকবাল সে সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এসময় জাফর ইকবালকে হাসিখুশি দেখা যায়। সাংবাদিকদের ক্যামেরায় ধরা পড়া আজকের আলোকিত দৃশ্য!

এদিকে কথিত আওয়ামী মাদ্রাসা প​ড়ুয়া আসামীকে আদালতে তোলা হলে তাকেও রহস্যঘেরা হাসিমুখে দেখা যায়। ছবি দুইটিতে একটি জায়গায় মিল খুজে পাই। দেবীর মন্ত্রের ফুঁকে মরা ষাঁড়টি খিলখিল করে হেঁসে উঠিল। “আঘাত প্রাপ্ত ব্যাক্তিও হাসতেছে! আর যে হামলা করেছে সেও হাসতেছে”। “কেবলমাত্র বিশ্ব অভিনেত্রী শেখ হাসিনা সিরিয়াস মুডে আছেন”। কে যেন চুপ চাপ মনে মনে বলছিল, আরে জাফর তুই আগে ছিলি ষাঁড় __ এখন হইলি বলির পাঠা! পাঠা কি কখনও কিছু বোঝে? কেমন করে সর্প হয়ে দংশন করে, আর ওঝা হয়ে ঝাড়ে- এটা বোঝার ক্ষমতা পাঠার নাই। শুধু জেনে রাখ কেবল হুকুম ছিল- হালকা করে কোপ দিবি, যেনো কিছু না হয়। আমার ইস্যু খাড়া করা দিয়েই বিষয়। মাত্র ৪ সেকেন্ডের খেলা! তা না হলে কি এমন ভাবে খিলখিল করে পাঠার মতো হাঁসিস!

তবে অন্য খেলায় পিছনে পড়লেও জাফর সাহেব একজন ভালো ড্যান্সার ও বটে? হামলাকারী ধরা পড়ার পর মোল্লা হয়ে গেল? কি আজব এই নাটক?

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ ঘটনাকে সরকারের সাজানো নাটক বলে কানাঘুষা চলছে। আর কতদিন দেখতে হবে আমাদের এই সব পাতানো আজব নাটক?

বাংলাদেশের তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাবেক বৈদেশিক উপদেষ্টা এবং বিএনপির বিশেষ দূত জাহিদ এফ সরদার সাদীর ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া পোষ্টটি হুবহু তুলে ধরা হল।

বি:দ্র: পোষ্টটি লেখকের ব্যক্তিগত মতামত, সময়বাংলা সম্পাদকীয় নীতিমালার আওতাভুক্ত নয়।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর