ঘরের শত্রু বিভীষণ !

নিজাম উদ্দিন, স্পোর্টস রিপোর্টার : কিছুদিন বাদেই শ্রীলংকা সফর। দল ঘোষনার পর হোম অফ ক্রিকেটে ফিটনেস অনুশীলন ও চলছে সফরের জন্য। মজা করে বলা যায় সফরটা কিন্তু শ্রীলংকার বিপক্ষে শ্রীলংকাও। বাংলাদেশ দলের ম্যানেজমেন্ট এর বড় একটা অংশ শ্রীলংকান। প্রধান কোচ চন্ডিকা হাতুরেসিংহে , ব্যাটিং পরামর্শক সামারাবীরা ও ট্রেনার ভিল্লাভারায়ণ তিনজনই কিন্তু লংকান নাগরিক। তিনজনই শ্রীলংকা সফরে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবে। শ্রীলংকার খুঁটিনাটি, দুর্বল যায়গাগুলো তাদের চেয়ে কে অার ভালো জানবে? অার তাতে বাংলাদেশরই লাভ। তাই শ্রীলংকানদের কাছে তারা ‘ঘরের শত্রু বিভিষন ‘ হয়ে উঠবে।

একসময় বাংলাদেশের সাথে তাদের লড়াইটা হত একতরফা। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ১৬ টেষ্টে বাংলাদেশের জয় নেই একটিও, ড্র করেছে ২ টি, অন্যদিকে শ্রীলংকা জিতেছে ১২ টি। তবে সর্বশেষ ৪ টেষ্টের ২টি ড্র করেছে বাংলাদেশ। বৃষ্টি বাধায় নয় সেটা নিজেদের গুনেই। ১ টিতে মুশফিক পেয়েছিলেন প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে টেষ্টে ডাবল সেঞ্চুরি।

একতরফা লড়াই নিয়ে মুশফিক অাক্ষেপ করে বলেছিলেন – ‘আমাদের তারা প্রতিটি সিরিজে অনেক কষ্ট দিত’। অার এই কষ্ট দেওয়ায় সাহযোগীতা করতেন টাইগারদের ব্যাটিং পরামর্শক সামারাবীরাও। বাংলাদেশের বিপক্ষে এই ভদ্রলোক ৬৬.৬৬ গড়ে, ৮ ম্যাচের ৯ ইনিংসে ১ সেঞ্চুরি ও ৬ ফিফটিতে করেছেন ৬০০ রান। তিনি খেলেছেন সাকিব, তামিম, মুশফিদের বিপক্ষেও, সাকিবের হাতে ২বার অাউট ও হয়েছেন। কিন্তু এখন তো তিনি এদেরেই ব্যাটিং পরামর্শক। তাই তাকে শ্রীলংকান রা ‘ঘরের শত্রু বিভীষণ’ ও বলতে পারেন। ব্যাট হাতে যে হাতে তামিম -সাকিবদের ঘাম ঝরিয়েছেন অাজ সেই ব্যাট চালানোর কৌশল শিখিয়ে ঘাম ঝরাচ্ছেন এই সাবেক শ্রীলংকান তারকা।

গত দুবছর ধরে বাংলাদেশের ওডিঅাই ক্রিকেটে যা সাফল্য তার পেছনের নায়ক শ্রীলংকান চন্ডিকা হাতুরেসিংহে। প্রধান কোচ হিসেবেই কাজ করছেন টাইগাদের। প্রথমবারের মত টাইগারদের হয়ে নিজের দেশে সফরে করে লড়তে হবে নিজের দেশের বিপক্ষেই।

অাগের শ্রীলংকা অার অাগের বাংলাদেশ অার নেই। ক্রিকেটে পরিবর্তন এসেছে। বাংলাদেশ ও তাদের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। অারেক লংকান ট্রেইনার ভিল্লাভারায়ণ অাশাবাদী মুশফিক – তামিমদের নিয়ে – ” ২০১৩ সালে। অসাধারণ এক সিরিজ ছিল সেটা। ওই অভিজ্ঞতা নিয়েই আমরা এবার যাচ্ছি। যদি ব্যক্তিগতভাবে জিজ্ঞেস করেন, এবারও ভালো সুযোগ আছে। যদি সবাই নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারে।”

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন