জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে মালয়েশিয়া স্বেচ্ছাসেবকলীগের আলোচনা সভা

 

awজহিরুল ইসলাম হিরন, সময় বাংলা, মালয়েশিয়া : ১৫ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের মালয়েশিয়া শাখা।

রবিবার রাজধানী কুয়ালালামপুরের হোটেল সলিলের বলরুমে আয়োজন করা হয় এ অনুষ্ঠানের। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া সফররত কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব:)।

সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাংলাদেশকে বিশ্বের মানুষ অন্যভাবে চিনতো। যারা সেদিন বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে তারা স্বাধীনতার শত্রু, দেশের শত্রু।

তিনি আরও বলেন, প্রবাসীরাই আসল দেশপ্রেমিক। আপনাদের পাঠানো রেমিটেন্সেই ঘুরছে দেশের অর্থনীতির চাকা। তারপরও প্রবাসে আপনাদের পোহাতে হয় নানান ধরণের ঝামেলা। আপনাদের এসব ঝামেলা নিরসনে আমি আপনাদের পক্ষে কাজ করে যাবো।

প্রবাসে শত কর্মব্যস্ততার মাঝেও শোক দিবসের এ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান দাউদকান্দির জনপ্রিয় এ জন প্রতিনিধি।

কোরআন তিলাওয়াত ও নিরাবতা পালনের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মালয়েশিয়া স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোনায়েম খান। দলটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জালাল উদ্দিন সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন মকবুল হোসেন মুকুল।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেন পান্না, বাংলাদেশ তাঁতিলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব মো. মোস্তফা, মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি হাজী জাকারিয়া হামিদ, যুগ্ন-আহ্বায়ক রাশেদ বাদল, যুবলীগের আহ্বায়ক তাজকীর আহমেদ, যুগ্ন-আহ্বায়ক মানসুর আল বাশার সোহেল, শ্রমিকলীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম বাবুল, সহ-সভাপতি শাহ আলম হাওলাদার ও দাউদ কান্দির আওয়ামী লীগ নেতা নোমান সরকার।

স্বেচ্ছাসেবকলীগ কুয়ালালামপুর মহানগরের সহ-সভাপতি শেখ জাহাঙ্গীরের শুভেচ্ছা বক্তব্য দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন মালয়েশিয়া যুবলীগ নেতা আমান উল্লাহ আমান।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ন কবির, মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগ কুয়ালালামপুর শাখার সভাপতি সঞ্জয় খান্না বিদ্যুত, শাহিনুর রহমান টিটু, যুবলীগের রেজাউল হক লায়ন, শেখ জহির, মাহমুদ, আমিনুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এস কে মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক লিটন সরকার বাবু, কাজী হালিম, মো. সুমন, শ্রমিকলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন খান, ছাত্রলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক ওয়াসিম ওয়াজেদ, রাসেল শিকদারসহ শতাধিক নেতাকর্মী।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন