ঝিনাইদহের প্রতিবন্ধী কলেজ ছাত্র টিপু সুলতানের পাশে দাড়াবার কেও নেই

tipoজাহিদুর রহমান তারিক, সময় বাংলা, ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের মেধাবী ছাত্র শারিরীক প্রতিবন্ধি টিপু সুলতান ভবিষ্যতে শিক্ষক হতে চায়। সত্যই সে কি পারবে তার আশা পূরন করতে ?

টিপু সুলতান ঝিনাইদহ জেলার আঃ রউফ কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে শৈলকুপা ডিএম কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তি হয়েছে। সাহস আর বুকভরা আশা নিয়ে তার সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। হতদরিদ্র পিতা কৃষি কাজ করে। কখনো কখনো পরের ক্ষেতে কাজ করে সংসার চলায়। সারাটা জীবন কাটলো অবহেলা আর অনাদরে। আঞ্চলিক ভাষায় আমরা বামন বলি। এদের কাজ জোটে সার্কাসের প্যান্ডেলে। কিন্তু সে তা করতে রাজি নয়। টিপু সুলতান ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকু- উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের ভূইয়া পাড়া গ্রামের ইউনুছ আলী ছেলে।
টিপু জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী বর্তমানে তার বয়স ২১ বছর, উচ্চতা ৩ফিট। তিন ভাই বোনের মধ্যে টিপু সুলতান সবার বড়। কলেজ থেকে ফেরার পথে তার সাথে কথা হলে সে জানায়, শুনেছি সরকার প্রতিবন্ধীদের ভাতা এবং অনেক সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকেন। কিন্তু আমি চেয়ারম্যান মেম্বারসহ অনেকের কাছে গিয়েছি, আমি তাদের কাছ থেকে কোন সহযোগীতা পায়নি।

সে ভবিষ্যতে শিক্ষক হতে চাই। প্রতিবন্ধী হয়েও আমি আমার বাবার মুখে হাসি ফোটাব, আমি পরিবারের বোঝা হয়ে থাকতে চাইনা। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন। তার বাবা মা টিপুর শিক্ষা জীবন চালিয়ে নিতে সকলের সুদৃষ্টি কামনা করেন। সমাজের বৃত্তবানদের এই মেধাবী শারিরীক প্রতিবন্ধী ছাত্রটির দিকে একটু সাহায্যের হাত বাড়াতে অনুরোধ করা গেল।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন