ঝিনাইদহে মাদ্রাসা শিক্ষকে আটকে রেখে পৈশাচিকভাবে হত্যা করা হয়েছে : জামায়াত

abu horayraসময় বাংলা, ঢাকা: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কুঠিদুর্গাপুর দাখিল মাদরাসার শিক্ষক আবু হুরাইরা মালিথাকে আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয় দিয়ে মাদরাসা থেকে তুলে নিয়ে এক মাস ছয় দিন গায়েব করে রেখে নির্মম ও পৈশাচিকভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে জামায়াতে ইসলামী।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে দলটির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এ অভিযোগ করেন।

বিবৃতিতে ডা. শফিক বলেন, “এ ঘটনার দ্বারাই প্রমাণিত হচ্ছে দেশে আজ মানুষের জানমালের কোনো নিরাপত্তা নেই। দেশের মানুষ জানমাল নিয়ে শঙ্কিত ও আতঙ্কিত। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কুঠিদুর্গাপুর দাখিল মাদরাসার শিক্ষক জামায়াত কর্মী আবু হুরাইরা একজন আদর্শ শিক্ষক ছিলেন। তাকে গত ২৩ জানুয়ারি মাদরাসা থেকে সাদা পোশাকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর লোকেরা নিয়ে যাওয়ার পর ২৯ ফেব্রুয়ারি তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

তিনি বলেন, এ মর্মান্তিক ঘটনায় তার পরিবার-পরিজন এবং আত্মীয়-স্বজন শোকে মুহ্যমান। তার বিরুদ্ধে যদি কোনো সুনির্দিষ্ট মামলা বা অভিযোগ থেকে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া যেত। কিন্তু তা না করে এক মাস ছয়দিন গায়েব করে রেখে নির্মম নির্যাতন চালিয়ে তাকে পৈশাচিকভাবে হত্যা করাকে কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য হোক বা যারাই হোক এ অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য আমি আহবান জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন