ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে রুগীদের চরম ভোগান্তী,বন্ধ রয়েছে এক্স-রে বিভাগ

Jhenaidah Hospital2সময় বাংলা,ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চার মাস যাবৎ বন্ধ রয়েছে এক্স-রে বিভাগের কার্যক্রম। ফিল্ম না থাকায় এক্স-রে কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে প্রতিদিন শাতাধীক রোগী এক্স-রে করাতে না পেরে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। হাসপাতালে এক্স-রে ফ্লিম না থাকায় আশপাশের ক্লিনিকগুলোর পোয়াবারো। হাসপাতাল থেকে নাম ধরে সেই সব ক্লিনিকে যাওয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের মেডিকেল কেটনোলজিস্ট (রেডিওগ্রাফি) শফিকুল ইসলাম জানান, চিকিৎসকদের পরামর্শে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগ থেকে প্রতিদিন ৫০ থেকে ৬০ জন রোগীকে বিভিন্ন ধরনের এক্স-রে করানো হয়। কিন্তু গত ১ ডিসেম্বর থেকে এক্স-রে ফিল্ম না থাকায় রোগীদের এক্স-রে করা সম্ভব হচ্ছে না। এ বিভাগ থেকে প্রতিটি এক্স-রে করানোর জন্য সরকারীভাবে ৫৫ থেকে ৭০ টাকা করে নেওয়া হতো। তিনি আরো জানান, হাসপাতালে এক্স-রে ফিল্ম সরবরাহের ব্যাপারে বেশ কয়েকদিন আগে টেন্ডার হয়েছে। ঠিকাদাররা ফিল্ম সরবরাহ করলেই এ সংকট কেটে যাবে।

এদিকে ভুক্তভোগি গোবিন্দপুরের আব্দুস সালাম নামে এক রোগীরা জানান, আমরা গরীব মানুষ, কম খরচে সদর হাসপাতালে এক্স-রে করাতে আসি। কিন্তু এক্স-রে করাতে আসলে এখান থেকে বলা হচ্ছে ফ্লিম নাই। বাইরের কোন প্রাইভেট হাসপাতাল বা ক্লিনিক থেকে এক্স-রে করাতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। ফলে বাইরে থেকে আমাদেরকে কয়েকগুন বেশী মুল্যে এক্স-রে করাতে হচ্ছে। এতে করে আমরা ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছি।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোজাম্মেল হক জানান, ঠিকাদররা ফ্লিম সরবরাহ করলেই আবার এক্স-রে করানো হবে। এ জন্য হয়তো আর বেশি দিন রোগীদের কষ্ট করতে হবে না।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন