ডিজিটাল করা হবে দেশের সকল বিদ্যালয়: প্রধানমন্ত্রী

hasina,mosnigonjসময় বাংলা ঢাকা: দেশ-বিদেশে শিশুদের মেধা বিকাশের সুযোগ করে দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ওসমানী মিলনায়তনে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ আহ্বান জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, সন্ত্রাসী কাজে জড়িত হওয়ার মতো বিভ্রান্তি যেন শিশুদের মধ্যে ছড়াতে না পারে সে জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে কার্যক্রম থাকা উচিত।

তিনি আরো বলেন, দেশের সকল বিদ্যালয় ডিজিটাল করার পাশাপাশি প্রাথমিক পর্যায়ে কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হবে। বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শিক্ষা ব্যবস্থায় বঙ্গবন্ধুর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার কথা উল্লেক করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিধ্বস্ত বাংলাদেশ। গোলায় চাল বা ধান নেই, চারিদিকে হাহাকার, সমস্ত কিছু বিধ্বস্ত, ধ্বংসস্তূপের মাঝে দাঁড়িয়ে তিনি দেশকে গড়ে তুলছিলেন। এর মাঝেও তিনি শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন। মেয়েদের শিক্ষা অবৈতনিক করে দিয়েছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী জানান, বঙ্গবন্ধু যখন সরকার গঠন করে স্বাধীন দেশে নয় মাসের মধ্যে সংবিধান দেন। আর এই নতুন সংবিধানে তিনি প্রাথমিক শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, শিক্ষা মৌলিক অধিকার। ২০০৮ সালে আমরা যখন ক্ষমতায় আসি তখন ২৬,১৯৩ টি বেসরকারি স্কুল-কলেজকে সরকারিকরণ করেছি। ৭২ সালের পর আর কেউ এটা করেনি।

‘মানসম্মত শিক্ষা, জাতির প্রতিজ্ঞা’- প্রতিপাদ্য নিয়ে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ পালিত হচ্ছে।

সকাল সড়ে ১০টায় রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোতাহার হোসেন।

সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হুমায়ুন খালিদ।

আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ উদযাপন করবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন