দক্ষিন কোরিয়ায় বাংলাদেশ অরর্গানাইজেশনের ঊদ্দ্যোগে ঈদ পূর্ণমিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ২০১৬ অনুষ্ঠিত

মনির পাটোয়ারী, সময় বাংলা, দক্ষিন কোরিয়া:  দক্ষিন কোরিয়ায় বাংলাদেশ অরর্গানাইজেশনের সভাপতি আহমেদ রতনের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি সৈয়দ কায় খসরুর উপস্থাপনায় ইনছন পুচ্ছনে  ঈদ পূর্ণমিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ২০১৬ অনুষ্ঠিত হয়।Capture78

উক্ত অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে বাংলাদেশ অরর্গানাইজেশন ও পুচ্ছন বিদেশী সাহায্য সংস্থা (ইয়ংজুমিয়ন সেন্টার)।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিন কোরিয়া বাংলাদেশ দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ জুলফিকার রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব  জাহিদুল ইসলাম ভূইয়া, বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর রুহুল আমিন।

ঈদ পূর্ণমিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশীদের পদচারনা মুখরিত হয়ে উঠে অনুষ্ঠানস্থল। শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন হাফেজ মিজানুর রহমান। সিডি সমবেত জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দক্ষিন কোরিয়ায় বাংলাদেশ অরর্গানাইজেশনের সভাপতি আহমেদ রতন ও পুচ্ছন বিদেশী সাহায্য সংস্থার সভাপতি সোন ইন হোয়ান। Capture75

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোঃ জুলফিকার রহমান বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশীদের মেধা মন দিয়ে বিদেশের মাটিতে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করতে সবাইকে আন্তরিক ভাবে সচেষ্ট হতে হবে। ঈদ পূর্ণমিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ২০১৬ আয়োজনে বিদেশী সাহায্য সংস্থা ও বাংলাদেশ অরর্গানাইজেশনের সকলের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব জাহিদুল ইসলাম ভূইয়া, বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর রুহুল আমিন, পুচ্ছন বিদেশী সাহায্য সংস্থার সভাপতি কিম সোন ইন হোয়ান।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান জমকালো এক আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শুরতে কে পপ গ্রুপ নাচ পরিবেশন করেন। তার পরে শুরু হয় কোরিয়ান স্বনামধন্য নৃত্য শিল্পীদের নিয়ে নৃত্যানুষ্ঠান বেলী নাচ। অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন প্রবাসী বাংলাদেশী কোরিয়ার বাঙা বাঙা ছবির অভিনেতা ও গানের শিল্পী খান। কোরিয়ার প্রবাসী বাংলাদেশী গানের শিল্পী সৈয়দ কায় খসরু, বাউল শিল্পী আশুতোষ অধিকারী, গায়ক মারুফ আহমেদ ইফতি। যন্ত্রসংগীতে সার্বিক সহযোগীতা করেন বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব জাহিদুল ইসলাম ভূইয়া ও তার পুত্র। অনুষ্ঠানের শেষে ভোজ সভা ও সবাইকে উপহার প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে সার্বিক ভাবে সহযোগীতা করেন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় পরিষদ। সার্বিক ভাবে অনুষ্ঠানটি প্রবাসীদের কাছে আনন্দময় করতে অত্যান্ত পরিশ্রম করেন আরিফুর রহমান, মোস্তফা কামাল, আবদুল মান্নান, রনি, আলী প্রমুখ।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন