পাকিস্তানে খেলার ইচ্ছা সাকিবের !

নিজাম উদ্দিন, স্পোর্টস রিপোর্টার : পাকিস্তানের ভেন্যু নিয়ে সবার মধ্যেই অনেক বিতর্ক। সবার অাপত্তি একটাই নিরাপত্তা সংকট। একপ্রকার তাই প্রমান হয়েছে বারবার। বেশকয়েকবছর অাগে শ্রীলংকান খেলোয়াড়দের উপর হামলার পর পাকিস্তানের মাটিতে কাররই খেলার সাহস হয়নি। এরপর অাবারো জিম্বাবুয়ে সফর করলে মাঠেই বোমা হামলা হয়। তারপর থেকে অার ক্রিকেটের কোন অান্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়নি পাকিস্তানের মাটিতে। সয়ং সাকিব অাল হাসান নিজেই তো বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর নিয়ে সর্বপ্রথম সরাসরি না করেছিলেন।

সম্প্রতি পি.এস.এল. এর এক ইন্টারভিউতে সাকিব অাল হাসান পাকিস্তানের মাঠে খেলা নিয়ে বলেন, পাকিস্তানে খেলতে মুখিয়ে অাছেন তিনি – ” আমি সর্বশেষ পাকিস্তানে খেলেছি সেই ২০০৮ সালে আমার জন্য অসাধারণ এক অভিজ্ঞতা ছিল। দর্শক, মাঠ, আবহাওয়া, সমর্থক এবং পুরো পরিবেশটাই ছিল দুর্দান্ত। আমি সত্যি আশা করি, পরিস্থিতি ভালো হলেই আবারও পাকিস্তানে খেলতে পারব।” ২০০৮ সালে সাকিবের সেই পাকিস্তান সফর ছিল তার ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা মূহুর্ত। সেখানেই পাকিস্তানের বিপক্ষে পেয়েছিলেন টেষ্ট খেলুড়ে কোন দেশের বিপক্ষে সর্বপ্রথম সেঞ্চুরি। কিন্তু এতবছর হল অার কখনই তিনি পাকিস্তানে খেলতে পারেননি।

বর্তমানে সাকিব পাকিস্তান সুপার লীগ এ খেলছেন, সেখানে সতীর্থ বন্ধু তামিম। বিগব্যাশ, অাই.পি.এল, সি.পি.এল খেলা সাকিবের কাছে নাকি পি.এস.এল ই সবচেয়ে বন্ধুত্বপূর্ণ লীগ। এজন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড কে প্রশংসায় ভাসান তিনি – ” পিএসএল বিশ্বের অন্য লিগগুলোর প্রায় কাছাকাছি মানের। এমন প্রতিযোগিতা আয়োজন করায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের প্রশংসা করতেই হচ্ছে।

সারা বিশ্বের খেলোয়াড়দের মেশার সুযোগ করে লিগগুলো কিন্তু পিএসএলের মতো এত চমৎকার আবহ সৃষ্টি করতে খুব কম বোর্ডই পারে!” পিএসএল এর দর্শকঘাটতি কাটিয়ে উঠতে পরামর্শ ও পাকিস্তানের মাটিতে খেলা নিয়ে অাশাবাদী তিনি – ” পিএসএল যদি আরব আমিরাতে না হয়ে পাকিস্তানে হতো, তাহলে আরও বেশিউত্তেজনা থাকত, আবেগ থাকত। পাকিস্তান খুব কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, কিন্তু আশা করি আস্তে আস্তে সব ভালো হয়ে যাবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটও ফিরে আসবে সেখানে।”

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন