পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিচ্ছে ‘অ-বর্ণ ইশকুল’।

নিজাম উদ্দিন, নিজস্ব প্রতিবেদক: অ-বর্ণ ইশকুল!
‘শিক্ষা মোদের মূলনীতি, পড়ব মোরা গড়ব জাতি’ এই স্লোগান কে লক্ষ রেখে এরকম নামেই (নাম অঞ্চলের) শুরু হয়েছে স্কুলটি। ‘বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল অামিন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ’ এর পরিচালিত সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে কাজ করা একটি প্রতিষ্ঠান। ঘরের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানোর মত করেই একেবারে বিনে পয়সায় প্রাথমিক শিক্ষার স্কুলটি শুরু হয়েছে উদ্দ্যোমী কিছু ছেলের হাত ধরে। মূলত গরীব, অসহায় শিশুদের মাঝে জ্ঞানের অালো ছড়িয়ে দিতে কাজ করে যাচ্ছে এই প্রতিষ্ঠান টি। একদল উচ্ছসিত তরুন সেচ্ছাসেবী এই ‘অ-বর্ণ ইশকুল’ এর মাধ্যমে অর্থাভাবে স্কুল থেকে ঝরে পড়া গরীব শিশুদের মাঝে শিক্ষার অালো ছড়িয়ে যাচ্ছেন। নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বারাহিপুর গ্রামে এই স্কুলটির কার্যক্রম চলে অাসছে। প্রতিষ্ঠান টি চালু হওয়ার পর থেকে অত্র এলাকায় ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের হার অনেকটাই কমে গেছে। সমাজের গরীব, অসহায় কিছু শিশু যারা টাকার অভাবে পড়ালেখা ছেড়েই দিয়েছিল, তারা অাজ এই ‘অ-বর্ণ ইশকুল’ এর মাধ্যমে অাবারও দেখেছে অালোর মুখ। ‘বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল অামিন ফাউন্ডেশন’ এর সেচ্ছাসেবীদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এই প্রতিষ্ঠানটি দিনদিন সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানে সম্পূর্ণ বিনাবেতনে পড়ালেখা করছে প্রায় শতাধিক গরিব শিশু।

প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চাইলে ‘অ-বর্ণ ইশকুল’ এর পরিচালক ও বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল অামিন ফাউন্ডেশন এর সভাপতি মাহফুজুর রহমান বলেন, অল্পতেই যাতে কোন শিশুর শিক্ষাজীবন বিপন্ন না হয় সেই লক্ষে অামরা কাজ করে যাচ্ছি। প্রথমদিকে অামরা অসহায় ঝরে পড়া শিশুদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদের অভিবাবকদের বুঝিয়ে স্কুলে এনেছি, এখন মোটামুটি ভালই সাড়া পাচ্ছি। সবার সহযোগীতা ও পৃষ্ঠপোষকতা পেলে অামরা এই কার্যক্রম কে অারো এগিয়ে নিব ইনশাঅাল্লাহ।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন