পৃথিবীর প্রথম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস স্মৃতিসৌধের ১০ বছর পূর্তি

20216 astreliaসময় বাংলা, অস্ট্রেলিয়া: গতকাল ১৯ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর প্রথম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস স্মৃতিসৌধের ১০ বছর পূর্তি ও গবেষণামূলক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে বিকেল ৩টায় অ্যাসফিল্ড সিটি কাউন্সিলের মেয়র লুসিলে ম্যাককেন্না ও মাদার ল্যাংগুয়েজেস কনসারভেশন মুভমেন্ট ইন্টারন্যাশনালের প্রতিষ্ঠাতা নির্মল পাল, ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি মাতৃভাষা বাংলার জন্য নিহত ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস স্মৃতিসৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। 

বিকেল ৪টা ৩০ মিনিটে মাদার ল্যাংগুয়েজেস কনসারভেশন মুভমেন্ট ইন্টারন্যাশনাল কর্তৃক সংগ্রহীত ১০২টি ভাষার বর্ণমালার পোস্টার দিয়ে সাজানো অ্যাসফিল্ড টাউন হলে মাতৃভাষা বিষয়ক গবেষণামূলক সেমিনার ও আলোচনা অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। 

অনুষ্ঠানের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সংগীত পরিবেশন এবং একুশে ফেব্রুয়ারির ঐতিহাসিক গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি’ পরিবেশন করা হয়। এরপর ’৫২ এর ভাষা আন্দোলনে নিহত ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে সকলে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এ পর্বে অ্যাসফিল্ড সিটি কাউন্সিলের জেনারেল ম্যানেজার মিসেস ভেনেসা চ্যান অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের উষ্ণ সংবর্ধনা জানিয়ে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন। 

গবেষণামূলক সেমিনার পর্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ এডেলাইড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর গিলাড যুকারম্যান, সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মিথাইল ওয়ালস, ড. রেইনার কারজ, এনাম হক, টিথান পাল, নির্মল পাল, কাউন্সিল রাজ দত্ত। সেমিনারের রেপোটিয়ার ও মডারেটরের দায়িত্বে ছিলেন ড. রতন কুণ্ডু।

আলোচনা পর্বের শুরুতেই অনুষ্ঠানের সভপতি অ্যাসফিল্ড সিটি কাউন্সিলের মেয়র লুসিলে ম্যাককেন্না সবাইকে শুভেচ্ছা জানান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার কাজী ইমতিয়াজ হোসেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সাবেক উপদেষ্টা ও প্রাক্তন সচিব এন আই খান, আরটিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক রহমান, বাংলাদেশ হাই কমিশন অস্ট্রেলিয়ার অনারারি কনসুলেট জেনারেল আ্যনথনি খৌরী। 

 

আলোচনা পর্বে বক্তব্য দেন, ড. মাসুদুল হক,  ডে অব ডিফারেন্ট চ্যারিটি অরগানাইজার রন ডিলেজিও, টোংগা কমিউনির কাউন্সিলর মিসেস ভেলম ম্যাট, নজরুল ইসলাম (অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাস প্রাপ্ত প্রথম বাংলাদেশি), ড. মাকসুদল বারী, বিশিষ্ট আইনজীবী ও অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল হক, বিদেশবাংলা ২৪ ডট কমের সম্পাদক মোহাম্মদেদ আবদুল মতিন, এসবিএস রেডিও বাংলা বিভাগের নির্বাহী প্রয়োজক আবু রেজা আরেফিন, সুমন সাহা প্রমুখ। 

মিস দিব্যা ডিনগারার সাবলিল উপস্থাপনায় এবং ড. এহসান আহমেদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের প্রধান উপদেষ্টা গামা আবদুল কাদির, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মাদ আলী সিকদার, বঙ্গবন্ধু পরিষদ সিডনি অস্ট্রেলিয়ার সাধারণ সম্পাদন গাউসুল আজম শাহজাদা সহ বিভিন্ন কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এসবিএস রেডিও বাংলা বিভাগের নির্বাহী প্রয়োজক আবু রেজা আরেফিন, ভয়েস অব বাংলা রেডিওর পরিচালক ড. নার্গিস বানু, বিদেশবাংলা টেলিভিশনের নির্বাহী প্রয়োজক রহমত উল্লাহ, বিদেশবাংলা ২৪ ডট কমের সম্পাদক মোহাম্মদেদ আবদুল মতিন, নবধারা নিউজ ডট নেটের সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ খোকন, ভোরের কাগজের অস্ট্রেলিয়া প্রতিনিধি কাজী সুলতানা সিমি, সুপ্রভাত সিডনির সিনিয়র রিপোর্টার আবদুল আউয়াল, আর টিভির অস্ট্রেলিয়া প্রতিনিধি সুলতানুল আরেফিন প্রমুখ। 

অনুষ্ঠানটি স্পনসর করেছে মিচুয়াল হোমস এবং মিডিয়া পার্টনার ছিল আরটিভি। 

আজ ২০ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) এই আয়োজনের দ্বিতীয় দিবসে সকাল ১০টা থেকে অ্যাসফিল্ড টাউন হলে ১০২টি ভাষার বর্ণমালার প্রদর্শনী এবং সিভিক সেন্টারের সামনে বাংলা, ইতালি, টোংগা, ল্যাতিন আমেরিকা, হিন্দি, ক্ষেমের, পাঞ্জাবি, নেপালি, মারাঠি, তামিল, ভিয়েতনামী, চাইনিজ, ইথিওপিয়ান, আরবি ইত্যাদিসহ ১৫টি ভাষা ও সংস্কৃতি ভিত্তিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলবে। এবং দুপুর ২টায় অ্যাসফিল্ড সিটি কাউন্সিলের মেয়র লুসিলে ম্যাককেন্না অ্যাসফিল্ড লাইব্রেরির দ্বিতীয় তালায় একুশে কর্ণারের শুভ উদ্বোধন করেন।

উল্লেখ্য যে, মাদার ল্যাংগুয়েজেস কনসারভেশন মুভমেন্ট ইন্টারন্যাশনাল সংগঠন একটি আন্তর্জাতিক ভাষাভিত্তিক সংগঠন। এই সংগঠনটি বাংলা ভাষাসহ পৃথিবীর অন্যান্য ভাষা-ভাষীদের সাথে নিয়ে কাজ করছে। একুশে একাডেমি অস্ট্রেলিয়া, বাংলা একাডেমি, বাংলা প্রসার কমিটি, সিডনি বাঙালি কমিউনিটি ইনক্ ও বাংলা স্কুলগুলো দীর্ঘদিন ধরে বাংলা ভাষা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। 

একুশে একাডেমি অস্ট্রেলিয়া প্রতি বছর অ্যাশফিল্ড হেরিটেজ পার্কে বই মেলা, সেমিনার, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, নাটক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। প্রতি বছরের মতো ২১ শে ফেব্রয়ারি সাকাল ৯টা ৩০ মিনিটে একুশের অনুষ্ঠানমালা শুরু হবে এবং চলবে বিকেল ৬টা পর্যন্ত।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন