ভিশণ ২০৩০ আর রূপকল্প ২০৪১ নিয়ে চুলছেড়া বিশ্লেষন

এড. সলিমুল্লাহ খান: আজ হোটেল ওয়েষ্টিনে ”ভিশণ ২০৩০” ঘোষণা করলেন বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া একজন মন্তব্য করলেন ক্ষমতায় গেলেইনা হবে।

চিন্তা করেন আমাদের মানসিকতা, যেমন ঐদিন একজন লেখলেন ”জোড় করে ধর্ষণ করেছেন, অন্যজন মন্তব্যে লেখলেন ”ধর্ষণ বললে তাহার সাথে জোড় করে কথাটা বলা ভুল। কেননা সম্মতিতে হলেতো তাকে ধর্ষণ বলা যায়না, ধর্ষণ মানেই জোড় করে করা। তেমনি খালেদা জিয়া ভিশণ ২০৩০ ঘোষণা করেছেন তাহা ক্ষমতায় গিয়ে বাস্তবায়ণ করার জন্যই।

একজন বললেন খালেদা জিয়া দেশকে ১১ বছর পিছিয়ে দিয়েছেন। কি কারণে বললেন, শেখ হাসিনার রূপকল্প-২০৪১ এর কারণে। কিন্তু তিনি জানেন কিনা একটা প্রবাদ আছে ”বসতে দিলে শুইতে চায়” রূপকল্প-২০২১ ঘোষণা করে দেশের গনতন্ত্রকে হরণ করে জোড় করে বিনা ভোটের সরকার আবার রূপকল্প-২০৪১, ঐ যে বসতে দিলে শুইতে চায়। এভাবে ”রূপকল্প ”’ শব্দটার মধ্যেও তেমন জোড় নাই, ভিশণ শব্দটা বাস্তব সম্মত। রূপকল্প হলো থাকতে পারলে করতে পারলে করবো, না পারলে নাই। আর ”ভিশণ” মানে করবোই।

এই কথার কোন ভিত্তি নাই ১১ বছর পিছিয়ে দিয়েছে। আমাদের ভাবা উচিত গনতন্ত্র ছাড়া দেশ যত বছর চলবে, তত বছর দেশ পেছাবে, বিএনপিকেও বুঝতে হবে ভিশণের প্রচার করবেন সাবলিল ভাবে, কোন ডেষ্ট্রাক্টিভ আন্দোলন প্রয়োজন নাই।

এই দেশের মানুষ ও বিশ্ব সমাজ যখন চাইবে দেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন হউক তখনি হইবে, তখন নির্বাচনের মাধ্যমে যে সরকার গঠিত হবে তা হবে গনতান্ত্রিক সরকার, তাদের ভিশণ তখন সাকসেস হবে।

জোড় করে ক্ষমতায় থেকে রূপকল্প ঘোষণা করা কিছুটা রূপকথার মতো লাগে। এবার ২০৪১ কেন ৩০৪১ করেন। একবার কাত হলে এই নৌকা আর কতো বছরে সোজা হবে তাহা ভেবেও লাভ নেই।  কাদেরের পরামর্শই ভালো ”টাকা পয়সা নিয়া দেশ ছাড়তে হবে” এটা আমার কথানা, এটা লীগের সাধারণ সম্পাদকের উপলব্দি….

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন