মতিয়ার “সাবেক সভাপতি” পদটি কালো তালিকাভুক্ত করার হুমকি দিলো ছাত্র ইউনিয়ন

কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের পক্ষে যখন দেশের বুদ্ধিজীবী সমাজ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এমনকি খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধারা পর্যন্ত অভিমত ব্যক্ত করছেন; তখন মতিয়া চৌধুরীর সংসদে প্রদেয় বক্তব্য তার রাজনৈতিক প্রজ্ঞার পরিচয় বহন করেনা। বাংলাদেশে যে কজন ব্যক্তি তাদের নামের প্রতি সুবিচার করেননি, তাদের মধ্যে মতিয়া চৌধুরী অন্যতম।

অবিলম্বে তাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার জন্য বলবো। অন্যথায় ছাত্র সমাজতো তাকে প্রত্যাখান করবেই, ছাত্র ইউনিয়নও অনার বোর্ড থেকে ‘সাবেক সভাপতি’ পদটি কালো তালিকাভুক্ত করতে বাধ্য হবে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন