মাত্র ৫০০ টাকা নিয়ে মুম্বাই এসেছিলাম

সময়বাংলা, বিনোদন:  প্রত্যেক সফলতার পেছনে একটি সংগ্রামী কষ্টের গল্প থাকে। ঠিক তাই। সাধারণ মানুষের চোখে যারা সফল ব্যক্তি, তাদের সবার জীবনেই রয়েছে কষ্ট জড়ানো অতীত আর কঠোর পরিশ্রমের গল্প। তারকাদের ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম নয়। যার একটি উদাহরণ বলিউডের এই সময়কার অভিনেত্রী দিশা পাটানি।

হ্যাঁ, অনেক সংগ্রাম করে দিশা আজকের অবস্থান এসেছেন। আজ যেই দিশা ‘বাগি ২’র মতো হিট ছবির নায়িকা, সেই দিশার মুম্বাই আসা এবং ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প একদমই মসৃণ ছিলো না। সম্প্রতি তিনি তার সংগ্রামী অতীতের কথা স্মরণ করে জানিয়েছেন সেসব গল্প।

দিশা জানান, বলিউডে আসার জন্য কলেজের পড়া ছেড়ে দিয়ে মুম্বাই এসেছিলেন তিনি। মাত্র ৫০০ টাকা হাতে নিয়ে চলে আসেন এই শহরে। যেখানেই খোঁজ পেতেন, সেখানেই অডিশন দিতেন। কারণ বাড়ির ভাড়া দেওয়ার চাপ ছিল। এখানে কাউকে চিনতেনও না। একা থাকতেন, রোজগার করতেন, কখনও বাবা মায়ের কাছে হাত পাতেননি। একটা সময় হাতে কোনও টাকা ছিল না।

দিশা আরও জানান, মুম্বাইয়ে তার কোনও বন্ধু ছিল না। তাই কাজ, ঘরে ফেরা আর ঘুমনো ছাড়া কিছুই করার থাকত না তার। তখন শুধু ভাবতেন নিজের জীবনের উদ্দেশ্য নিয়ে। সিনেমায় সুযোগ পাওয়ার আগ পর্যন্ত এমনই কষ্টের দিন পার করেছেন সুন্দরী এই অভিনেত্রী।

এরপর তিনি একটি তেলেগু ছবি ‘লোফার’ দিয়ে ২০১৫ সালে আত্মপ্রকাশ করেন সিনেমায়। তারপর ২০১৬ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বায়োপিক ‘এমএস ধোনী: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ ছবিতে অভিনয় করে দারুণ প্রশংসিত হন। সর্বশেষ তার অভিনীত ‘বাগি ২’ ছবি মুক্তি পায়। ভারতব্যাপী ছবিটি সফলতার সঙ্গে প্রদর্শিত হচ্ছে।

দিশার লক্ষ্য এমন ছবি করা যাতে তার সম্পর্কে মানুষের ধারণা পাল্টে এবং তার অভিনয় ক্ষমতা বাড়ে। মানুষ তাকে শিল্পী হিসেবে চিনুক। এজন্য বেশ সচেতন হয়ে কাজ করছেন তিনি। বেছে বেছে সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হচ্ছেন।

 

সময়বাংলা/আইজু

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন