যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানানো হয়েছিল, এটা লজ্জাজনক: প্রধানমন্ত্রী

shekh hasinaসময় বাংলা, ঢাকা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সচিবালয়ে বুধবার সকালে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় আয়োজিত রক্তদান কর্মসূচির অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিগত সময়ে যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানানো হয়েছিল। এটা জাতির জন্য লজ্জাজনক।

তিনি বলেন, আপনারা জনগণের সেবায় সর্বদা সচেষ্ট থাকবেন। শেখ হাসিনা বলেন, বঞ্চিত বাঙালির অধিকারের কথা বলতে গিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নির্যাতিত হয়েছিলেন। একাত্তরের আগে তৎকালীন পূর্ববঙ্গে বাঙালির কোনো অধিকার ছিলো না। বঙ্গবন্ধু সবসময় বাঙালির অধিকার আদায়ের কথা বলেছেন। সে কারণে তাকে নির্যাতনের স্বীকার হতে হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করেছিলেন। যে কোনো যুদ্ধে মিত্রশক্তি কারও বিরোধিতা করলে তারা জয়ী হতে পারে না। কিন্তু মিত্র শক্তির বিরোধিতার পরও জাতির পিতার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে আমরা স্বাধীনতাযুদ্ধে বিজয়ী হয়েছি। যুদ্ধজয়ের পর মাত্র তিন মাসের মধ্যে ভারতের সৈন্য ফেরত পাঠানো হয়েছে।

‘তিনি শুধু স্বাধীনতা এনেই দেননি। মানুষের মুক্তির জন্য ব্যাপক কর্মসূচিও হাতে নিয়েছেন। যুদ্ধের পর এ দেশে রাস্তাঘাট, পুল, কালভার্ট ছিলো না। ছিল না অবকাঠামোগত কিছুই। জাতির পিতা সেই বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে গড়ে তুলেছেন।’

প্রধানমন্ত্রী আক্ষেপ করে বলেন, যেসব আন্তর্জাতিক শক্তি আমাদের মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছিলো, পরে তাদের ষড়যন্ত্রেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছে। আমার মা ফজিলাতুন্নেছা, আমার ভাই শেখ কামাল, জামাল, ছোট্ট রাসেলকেও তারা হত্যা করেছিলো।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন