রাসুল (সাঃ)কে নিয়ে জাবি ছাত্রলীগ নেতার আপত্তিকর মন্তব্য, ক্যাম্পাসে নিন্দার ঝড়

সময় বাংলা প্রতিবেদক: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)কে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) শাখা ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা।

গতকাল বুধবার সকাল ১০টার দিকে শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক পল্লব আহমেদ তার ফেসবুকে রাসুল (সাঃ) কে ধর্মীয় জঙ্গিবাদের আবিষ্কার বলে উল্লেখ করে স্ট্যাটাস দেন। অভিযুক্ত পল্লব জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনিস্টিটিউট অব বিজনেস এ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (আইবিএ) ৪০তম ব্যাচের ছাত্র।

পল্লব তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘ধর্মীয় জঙ্গিবাদের আবিষ্কারক তথাকথিত মহানবী, শেষনবী/রাসূল হযরত মোহাম্মদ। ব্যাখ্যা পরবর্তী সংস্করণে।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পল্লব আহমেদ মওলানা ভাসানী হলে আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন। মদ, গাজা ও হেরোইন খাওয়ার দায়ে তাকে হল থেকে বের করে দিয়েছিল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে পল্লব শহীদ সালাম-বরকত হলে আশ্রয় নেয়।

এদিকে ফেসবুকে রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে এমন ধৃষ্টতা দেখানোর ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

শামসুল আলম দুলাল নামে এক শিক্ষার্থী অভিযুক্ত পল্লব আহমেদের স্টাটাসে কমেন্টস করে লিখেছেন, তথাকথিত মহানবী এর মানে কি? আগে নিজের জন্ম পরিচয় জেনে এমন কথা বলবে…।

সারোয়ার হোসেন লিখেছেন, পাগলামি বাদদে, তওবা করে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চা, তোকে ধিক্কার জানাই। তুই একজন গাঁজা খোর, তুই ক্যাম্পাসে কতো লোকের চর থাপ্পড় খেয়েছিস তার কোন ইয়ত্তা নেই। পাগল।

রিয়াজ হাসান লিখেছেন, কেউ ওর নামে ধর্ম অবমাননার মামলা করেন।

এম রহমান নিল লিখেছেন, লাইমলাইটে আসার জন্য এই রাস্তাটা না ধরলেও পারতে। সেম।

রাকিবুল ইসলাম লিখেছেন, নব্য নাস্তিকের জাহাঙ্গীরনগর ভার্সন। গরমে মাথা আউলাইয়া না থাকলে এই পোস্টটি সরিয়ে নেয়ার অনুরোধ করছি।

নোমান সিদ্দিক জীবন লিখেছেন, মহানবী যদি তথাকথিত হয় তাহলে আপনি কি? আর দ্রুত ব্যাখ্যা দিন কিভাবে তিনি ধর্মীয় জঙ্গীবাদের আবিষ্কারক হলেন…ইসলাম তো সন্ত্রাসবাদকে সাপোর্টই করে না, সর্বদা এটির বিরুদ্ধে..তবে কেউ যদি ইসলাম মানেই জঙ্গিবাদ বা অন্যকিছু ভাবে সে আস্ত বোকা ছাড়া কিছুই নয়।

শেখ সাব্বির লিখেছেন, ক্যাম্পাসের বড় ভাই তাই গালি দিলাম না, মহানবী (সাঃ)কে নিয়ে বাজে কথা বললে বড় ভাইয়ের সম্মান টুকু হারাবেন। তাঁকে নিয়ে কথা বলার আগে, তার সম্পর্কে ভালোভাবে জানুন। অল্প বিদ্যা ভয়ংকর।

আহসান হাবীব মেরাজ লিখেছেন, ভাই তোমার জন্য পাবনা হেমায়েতপুরের মেন্টাল হাসপাতালে একটা সীট রেডি করা আছে। দেরী না করে চলে যাও, ট্রিটমেন্ট নিয়ে সুস্থ হয়ে আস।

রাইহান মনি লিখেছেন, আপনি কেম্পাসের হউন বা না হউন, কি করেন না করেন, এটা দেখার বিষয়য় না। এই দেশে ইসলাম কে নিয়ে বাজে কটুক্তি করে কেউ রেহাই পায় নাই, পাবেও না। সময় থাকতে শুধরে যাওয়ার বিন্ম্র ভাবে আহবান করছি। ইসলাম আপনার ভালো লাগতে নাই পারে, তাই বলে নিজের কুরুচি পূর্ন মন্তব্যে সমাজে অশান্তির কীট ছরাবেন না।

এ সকল কমেন্টসের প্রতি উত্তরে পল্লব লেখেন, “লিখছি যখন উত্তর অবশ্যই দিব। ব্যক্তিগত কাজে সামান্য ব্যস্ত থাকায় আজ সম্ভব হচ্ছে না। জুম্মার নামাজের আগে সবাই উত্তর পেয়ে যাবেন বলে আশা করি। কোন প্রকার ইন্টিমিডেশন কখনো কোন কাজ করা থেকে বিরত রাখতে পারেনি পারবেও না । ধন্যবাদ”

আজ বৃহশপতিবার এই প্রতিবেদন লেখার আগ পর্যন্ত পল্লব তার এই আপত্তিকর মন্তব্য ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে ডিলেট করে নি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন