লক্ষ্মীপুর জেলার পান চাষে কৃষকদের ভাগ্য পরিবর্তনে সম্ভবনা

untitled-1সময় বাংলা, লক্ষ্মীপুর: লক্ষীপুরের রায়পুর উপজেলায় বছরে পান প্রায় ৫০-৬০ কোটি টাকার লেন দেন হয়। এ পান শুধু জেলার চাহিদা মিটায় না ,ঢাকা,চট্টগ্রাম, সিলেট, কুমিল্লা, ফেনী ও নোয়াখালীসহ বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ হচ্ছে এ পান। এ অঞ্চলে পান চাষে ভাগ্য বদলে দিতে পারে পান চাষী কৃষকদের। প্রতি শনি ও বুধবার লক্ষ্মীপুরের সবচেয়ে বড় পান বাজার বসে হায়দরগঞ্জ এলাকায়। বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ব্যবসায়ীরা আগের রাত থেকে হায়দরগঞ্জ বাজারে আসতে শুরু করেন। এছাড়াও রায়পুর পৌর শহরের নতুন বাজার এলাকায় প্রতি শুক্র ও সোমবার পানের বাজার বসে। বাজারের দিন ব্যবসায়ীরা চাহিদামতো পান সংগ্রহ করেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, রায়পুরে চার’শ হেক্টর জমিতে পান চাষ হয়। উৎপাদন খরচ হয় প্রায় আড়াই লাখ টাকা। বর্তমান বাজারে ভালোমানের প্রতি বিড়া পান বিক্রি হয় ১৮০-২০০টাকায়। এ হিসেবে রায়পুরে প্রায় ৪০ কোটি টাকার পান উৎপাদন হয়। তবে বেসরকারি হিসেবে পানের উৎপাদন হয় প্রায় ৫০ থেকে ৬০ কোটি টাকার। উপজেলার উত্তর ও, দক্ষিণ চর আবাবিল, উত্তর ও দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নে পানের আবাদ বেশি হয়। ‘পান পল্লী’ খ্যাত ক্যাম্পের হাট এলাকার পান চাষীরা জানান, বৈশাখ থেকে আশ্বিন মাস পর্যন্ত পানের উৎপাদন ভালো হয়। এ সময় উৎপাদিত পানের সাইজ ও বড় হয়। অতি শীত, ঘন কুয়াশা ও ক্ষেতে পানি জমে থাকলে পানের বরজ নষ্ট হয়ে যায়। একটি বরজ ১০ থেকে ২০ বছর পর্যন্ত স্থায়ী হয়। তবে মাঝে মধ্যে সংস্কার করতে হয়। এছাড়াও বর্তমানে সার ও কীটনাশকের দাম বেশি হওয়ায় পানের বরজের আবাদ কমে আসছে। শুষ্ক মৌসুমে বৃষ্টি না থাকায় পানি সেচ দিয়েও পান গাছ রক্ষা করা যায় না।

মিতালী বাজারের পান চাষী জব্বার মিয়া বলেন, সার ও কীটনাশকের দাম নিয়ন্ত্রনের মধ্যে থাকলে পান চাষ আরো বাড়িয়ে দিতে পারবো এবং ব্যাংক ও বিভিন্ন এনজিও যদি এগিয়ে আসে তাহলে পান চাষ আরো বেড়ে যাবে। আর পান চাষে এসব এলাকার মানুষের ভাগ্য বদলে যাবে নতুন পান চাষীদের।

জেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, লক্ষ্মীপুরে বিপুল পরিমাণ সুপারি গাছ থাকার কারনে পানের চাহিদাও বেড়ে যায়। আর নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুরের পানের যথেষ্ট সুনাম রয়েছে দেশ- বিদেশে। সঠিক পদ্ধতি মেনে পান চাষ করলে লাভবান হবে এই জেলার পান চাষীরা। পান চাষীদের সব ধরনের সহযোগিতা করার জন্য প্রতিটি উপজেলায় কঠোর নির্দেশনা রয়েছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন