লুটেরাদের কবল থেকে জনগণের সম্পদ রেলকে রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: কমরেড সেলিম

18216 c sসময় বাংলা, ঢাকা : বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, জনগণের সম্পদ রেলকে ধ্বংস করার জন্য শাসকগোষ্ঠী ধারাবাহিকভাবে নানা অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। সেবা না বাড়িয়ে প্রতিবছর রেলের ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে। বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, এডিবি’র পরামর্শে রেলকে ‘ডাউন সাইজ’ করা হচ্ছে। জনগণের সম্পদ রেলকে লুটেরাদের কবল থেকে রক্ষা করতে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

রেলের ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল, রেলওয়ের সব ধরনের দুর্নীতি-ভুলনীতি, অপচয় বন্ধের দাবিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) এবং বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) আজ ১৮ ফেব্রুয়ারি সকালে ঢাকায় রেল মন্ত্রণালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে কমরেড সেলিম এসব কথা বলেন। 

কর্মসূচির শুরুতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য শাহ আলমের সভাপতিত্বে ও বাসদ-এর কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বাসদ-এর সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লাভলু এবং বাসদ-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নেতা রাজেকুজ্জামান রতন।

সমাবেশে কমরেড সেলিম আরো বলেন, রেলওয়ের সম্পত্তি নিয়ে ব্যবসা চলছে। সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে রেলওয়ে। সরকার রেলকে সংকুচিত করে ব্যক্তিমালিকানাধীন পরিবহণ খাতকে ধীরে ধীরে শক্তিশালী করছে। বাংলাদেশে মাত্র ৮০ লক্ষ টাকায় ট্রেনের বগি তৈরি সম্ভব, সেখানে ইন্দোনেশিয়া থেকে ৪ কোটি টাকা দিয়ে বগি কেনা হচ্ছে। পার্বতীপুর, সৈয়দপুর, পাহাড়তলী এবং ছাতকের রেল কারখানায় ট্রেনের বগি, লোকোমোটিভ এবং স্লিপার- সবই দেশে তৈরি করার প্রযুক্তি থাকা সত্ সরকার এই কারখানাগুলিকে অকার্যকর করে রেখেছে। সরকারের গণবিরোধী নীতি ও তৎপরতার বিরুদ্ধে জনতার প্রতিরোধ গড়ে তোলার কোনো বিকল্প নেই।

কমরেড খালেকুজ্জামান বলেন, রেল এমন একটি পরিবহণ মাধ্যম, যেখানে অল্প সময়ে এবং অল্প খরচে ব্যাপক যাত্রীর যাতায়াত সম্ভব। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে যখন ট্রেনের ভাড়া কমানো হচ্ছে, তারপরও তারা লাভ করছে। কিন্তু বাংলাদেশে যাত্রীভাড়া বাড়িয়ে রেলের লোকসান কমানোর কথা বলা হচ্ছে। লোকসান কমানোর উপায় হলো রেলকে আরও বেশি যাত্রীবান্ধব করা, এই খাতে সব ধরনের দুর্নীতি-অনিয়ম-ভুলনীতি রোধ করা। ছয়শো কোটি টাকা ব্যয় করে ডেমু ট্রেন এনে লোকসান গুনছে সরকার, অথচ এই টাকা পরিকল্পিতভাবে ব্যয় করা হলে তা রেলে গতি সঞ্চার করতে পারতো।18216 comred selim

কমরেড শাহ আলম দেশব্যাপী বাসদ-সিপিবির নেতৃত্বে জনতার গণপ্রতিরোধ রচনার মাধ্যমে রেলের ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিলে সরকারকে বাধ্য করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানান।

সমাবেশে অন্য নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করে বলেন, সারা বিশ্বে যেখানে রেলপথ বাড়ছে, সেখানে বাংলাদেশে রেলপথ কমিয়ে আনা হচ্ছে। এর আগে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা দিয়ে প্রকৃতপক্ষে বাড়ানো হয়েছিলো ১২০ শতাংশ- যা জনগণের সাথে চরম প্রতারণা।
সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের দিকে অগ্রসর হলে, শিক্ষাভবনের মোড়ে পুলিশ মিছিলটিকে আটকে দেয়। সেখানে সিপিবি-বাসদ-এর নেতা-কর্মীরা আবারো বিক্ষোভ-সমাবেশে মিলিত হন। তারপর সমাবেশ শেষে করে সিপিবি-বাসদ-এর বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ঢাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুরানা পল্টনে এসে শেষ হয়। 

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন