লেবাননে অসংখ্য অবৈধ প্রবাসী, দেশে ফেরতে নাম নিবন্ধন

নিজস্ব প্রতিনিধি: সোমবার থেকে ফের শুরু হয়েছে লেবানন সরকারের অঘোষিত সাধারণ ক্ষমার নাম নিবন্ধন। কোনও জেল জরিমানা ছাড়া শুধু বিমান টিকেট দিয়ে লেবাননে বসবাসরত বৈধ আকামাবিহীন প্রবাসীরা দেশে ফেরার জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসে নাম নিবন্ধন করছেন। এই সুযোগ শুধুমাত্র বাংলাদেশিদের জন্যই।

দূতাবাস সূত্র জানা যায়, ২০১৬ সালের প্রথম দিকে শুরু হয় এই কর্মসূচি। সে সময় আড়াই হাজারেরও বেশি প্রবাসী বাংলাদেশ দূতাবাসে নাম নিবন্ধন করান। যদিও লেবানন সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর কথা দিয়ে ছিলেন প্রতি মাসে তারা তিন’শ জনকে দেশে ফেরার অনুমতি দিবে। কিন্তু বাংলাদেশি কর্মীদের পাসপোর্ট সংক্রান্ত জটিলতায় এবং লেবাননের আইনি জটিলতায় তাদের দেশে পাঠাতে বিলম্ব হয়। তবে এ পর্যন্ত এই কর্মসূচির মাধ্যমে প্রায় দুই হাজার কর্মী দেশে ফেরতে পেরেছেন।

তারই ধারাবাহিকতায় নতুন ১ হাজার নাম নিবন্ধনের নোটিশ জারি করে বাংলাদেশ দূতাবাস। আর খবরটি লেবাননের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়লে বৈধ কাগজপত্র বিহীন কর্মীরা ছুটে আসেন বাংলাদেশ দূতাবাসে দরখাস্ত জমা দিতে।

যদিও এক হাজার দরখাস্ত নেবার ঘোষণা দেয় দূতাবাস, তবে এ পর্যন্ত হাজারেরও বেশি দরখাস্ত জমা হয়েছে বলে দূতাবাস সূত্র জানা গেছে। আগামী ৯জুন পর্যন্ত দরখাস্ত জমা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

অন্যদিকে সোমবার ও মঙ্গলবার শত শত প্রবাসীদের উপস্থিতিতে হিমশিম খায় দূতাবাস।

রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার ও প্রথম সচিব সায়েম আহমেদসহ দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দেশ দক্ষতার সাথেই প্রবাসীদের সামাল দিতে দেখা যায়।

কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তারা একটি সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন। অবৈধ থাকতে আর ভালো লাগছে না। লেবানন আগের অবস্থায় নেই। তাই দেশে ফেরার জন্য নাম নিবন্ধন করাতে পেতে অনেকে ঈদের আনন্দ উপভোগ করছেন বলে জানান।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার জানান, এতো লোক একসাথে হবে ভাবতে পারিনি। দূতাবাসের জনবল কম হওয়ায় একটু সমস্যায় পরতে হয়েছে। তারপরও আমরা সামলে নিয়েছি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন