শাকিবের জনপ্রিয়তা রজনীকান্তের মতো: জয়দীপ মুখার্জি

সময়বাংলা, বিনোদন: সুপারস্টার শাকিব খান এখন পশ্চিমবঙ্গেও তুমুল সুপরিচিত। যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘শিকারী’ আর ‘নবাব’ ছবিতে কাজ করেই বাজিমাত করেছেন সাকিব। তাই কলকাতা শহরের অলিগলি ছাপিয়ে ধীরে ধীরে পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর, মুর্শিদাবাদ, কৃষ্ণনগরেও তার ভক্তদল তৈরি হয়েছে।

কলকাতায় শাকিবের অবস্থান নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন, পরিচালক জয়দীপ মুখার্জির। যিনি শাকিব খানের হিট দুটি ছবি ‘শিকারী’ ও ‘নবাব’র নির্মাতা।

সেখানকার গণমাধ্যম ও মিডিয়ায় শাকিবের উপস্থিতি কম কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে জয়দীপ মুখার্জি বলেন, শাকিবের সঙ্গে কথা বলে আমি জেনেছি, সে বাংলাদেশে বছরে কমপক্ষে পাঁচ থেকে ছয়টি ছবি করে। এটা তার দায়িত্ব বা কমিটমেন্ট বলতে পারেন। বাংলাদেশে তিনশো’র মতো হল রয়েছে, এরমধ্যে কিছু হল অনেক সময় বন্ধ থাকে। শাকিব যদি ছবি না করে ওখানকার (বাংলাদেশ) হলগুলোর ক্ষতি হবে।

শাকিবের সঙ্গে কাজ কেমন উপভোগ করেন ? জানতে চাইলে পরিচালক জয়দীপ বলেন, এই ব্যাপার নিয়ে আমি মজা করেই বলি, এটা হচ্ছে মনমোহন দেশাই ও অমিতাভ বচ্চনের মতো একটা জুটি। শাকিবের সাথে কাজ করতে আমি খুব উপভোগ করি। আমার মনে হয় শাকিবও সেটা করে। ‘শিকারী’র পর থেকে আমাদের যে রসায়ন শুরু হয়েছে সেটা এখন একটা সুন্দর আকার ধারণ করেছে।

জয়দীপ মুখার্জি আরও বলেন , বাংলাদেশে শাকিবের জনপ্রিয়তা রজনীকান্তের মতো। ভারতে অনেক বড় বড় হিরো আসছে। যার মধ্যে অমিতাভ বচ্চন একজন। আমি নিজেও অমিতাভ বচ্চনের ফ্যান। কিন্তু রজনীকান্তের সিনেমা মুক্তি পেলে যে একটা উন্মাদনা তৈরি হয় ভারতে। সেটা অন্য কোনো নায়কের ক্ষেত্রে হয় না। একই ব্যাপারটা আমি দেখতে পাই শাকিবের মধ্যে। বাংলাদেশে শাকিবের ছবি মুক্তি মানে দুই সপ্তাহে হল মালিকরা টাকা তুলে নেবে। শাকিবের ছবি মেরিট কেমন, সে ছবি ভালো না খারাপ সেটা দেখার আগে সেখানে দুই সপ্তাহ চলে। হাউজ ফুলও থাকে।

উল্লেখ্য, ‘চালবাজ’ সিনেমার মাধ্যমে এ পরিচালকের সাথে শাকিব খানের তিনটি ছবি হয়েছে। এবার আসছে ‘ভাইজান এলো রে’।

সময়বাংলা/আইজু

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন