“সব রায় মানা যায় না, সব রায় মানতে হয় না” ব্যারিস্টার আবু সায়েম

সময়বাংলা, লন্ডন: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ও তার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ বাকি পাঁচ জনকে যে রায় দিয়েছেন সরকার নিয়ন্ত্রিত আদালত, সেই রায়ের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার আবু সায়েম বলেন, সব রায় মানা যায় না, সব রায় মানতে হয় না।

আজ ব্যারিস্টার আবু সায়েম ফেসবুকে দেয়া এক স্টাটাসে এমনটি বলেন।

স্টাটাসে তিনি বলেন, “সব রায় মানা যায় না, সব রায় মানতে হয় না”  ১৮৫৭ সালে ড্রেড স্কট বনাম স্যান্ডফোর্ড মামলায় অ্যামেরিকান সুপ্রীম কোর্ট ক্রীতদাস প্রথা বহাল রাখার পক্ষে রায় দিলে জনগণ তাৎক্ষণিক সেটি প্রত্যাখ্যান করে। উত্তর ও দক্ষিণের মধ্যে ঐতিহাসিক গৃহযুদ্ধ শুরুর প্রেক্ষাপটও ছিলো কুক্ষাত সে রায়। পরিণতিতে মিলে ১৮৬৬ সালের সিভিল রাইটস অ্যাক্ট এবং ১৮৬৮ সালের সংবিধানের চতুর্দশ সংশোধনী। এভাবেই আফ্রিকান বংশোদ্ভূত কালো মানুষেরা স্বীকৃতি পায় অ্যামেরিকার নাগরিক হিসেবে। আর সময়ের ভাগাড়ে নিক্ষিপ্ত হয় দেশটির সর্বোচ্চ আদালতের রায়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় সন্দেহাতীতভাবে একটি বিচারিক তামাশা, ন্যায়বিচারের প্রতি ভয়াবহ পদাঘাত। বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান নির্দোষ। এটাই একমাত্র সত্য, এটাই জনতার চূড়ান্ত ফয়সালা। তাই ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি বখশিবাজার কোর্টের রায়।

এ রায় মানি না, মানতে পারি না। আদালত নয়, ফয়সালা হোক রাজপথে।।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর