সাভারের চোরাকারবারী সেলিমের গাড়ি মালামালসহ জব্দ, আটক তিন

নিজস্ব প্রতিনিধি: যশোরের আমরাখালি তল্লশি চৌকি থেকে সোমবার বডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা ভারত থেকে অবৈধ পথে আসা বিপুল পরিমান তৈরী পোশাকসহ তিনজনকে আটক করেছে। জব্দ করেছে তাদের ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটি।

আটককৃতরা হচ্ছে- রুবেল হোসেন, নবী হোসেন ও মাইক্রোবাস চালক আবু বক্কর। তাদের বাড়ি ঢাকার সাভারে।
বিজিবি সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি আমরাখালি তল্লাশি চৌকিতে ওত পেতে থেকে ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসে আটক করে। এর পর ওই মাইক্রোবাসে তল্লাশি চালিয়ে ভারতের তৈরী টি শার্ট, প্যান্ট, পায়জামাসহ মেয়েদের বিভিন্ন ধরনের পোশাক জব্দ করে।

এসময় মাইক্রোবাসের চালকসহ তিনজনকে আটক করা হয়।
চালক আবু বক্কর জিজ্ঞাসাবাদে বিজিবিকে জানিয়েছে, মাইক্রোবাসটির মালিক সাভারের ব্যাংক টাউনের বাসিন্দা ঝুট ব্যবসায়ী সেলিম আহম্মেদ। আর নবী ও রুবেলসহ তিনি সেলিমের কর্মচারী এবং বিভিন্ন কাজের সহযোগী।

তিনি আরও বলেন, সেলিম আহম্মেদ বর্তমানে ভারতে অবস্থান করছেন। ভারত থেকে এসব মালমাল পার করে এনে তিনি বেনাপোল থেকে মাইক্রোবাসে তুলে দেন।

বিজিবির একটি দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, সেলিম ঢাকা সাভার এলাকার একজন বড় মাপের চোরাকারবারী। তার বিরুদ্ধে এসংক্রান্ত অনেক তথ্য বিজিবির কাছে রয়েছে।

আমরাখালি তল্লাশি চৌকির সুবেদার আফজাল হোসেন বলেন, ভারত থেকে অবৈধ পথে পণ্য আনার অভিযোগে বেনাপোল পোর্ট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত: সম্প্রতি আশুলিয়ায় গামের্ন্টস শিল্পে নৌরাজ্য সৃষ্টির ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সেলিম আহম্মেদকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে তিনি আত্মগোপনে চলে যান। এরপর ওইসব সংবাদের প্রেক্ষিতে তিনি টাকা দিয়ে প্রতিবাদ প্রকাশ করে নিজেকে সাদু বানানোর চেষ্টা করেন।

কিন্তু এবার সে যে, বড়মাপের চোরাকারবারী তা প্রমান হয়ে গেলে বিজিবির হাতে তার সহযোগীরা ধরার পরার পর।

জানাগেছে, হেমায়েতপুর স্টান্ডে একটি মাকের্টে পোশাক বিক্রয়ের দোকান নিয়েছেন সেলিম আহম্মেদ। কিন্তু সেই দোকানের আড়ালে চোরাকারবারীর ব্যবসা পরিচালনার পায়তারা করছিলেন তিনি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন