সৌদি বাদশা ও যুবরাজের ছবিতে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ

সময় বাংলা ডেস্ক: আমেরিকার পক্ষ থেকে জেরুজালেম বা আল-কুদসকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার প্রতিবাদে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার অধিবাসীরা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও সৌদি বাদশাহ সালমানের ছবিতে আগুন দিয়েছে। সোমবার আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এ খবর প্রকাশ করেছে।

ট্রাম্পের ঘোষণার প্রতিবাদ জানাতে রোববার ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী পপুলার ফ্রন্ট গাজা শহরে এক বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দেয়। মুসলমানদের প্রথম কেবলাসমৃদ্ধ শহর জেরুজালেমের প্রতি অবমাননার প্রতিবাদ জানাতে হাজার হাজার গাজাবাসী বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়। বিক্ষোভকারীরা মার্কিন ও ইসরাইলি পতাকার পাশাপাশি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতিকৃতিতে আগুন দেয়। সেইসঙ্গে তারা সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের ছবিও আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়।

ইহুদাবাদী ইসরাইল গোটা জেরুজালেম শহরকে নিজের রাজধানী বলে দাবি করে। অন্যদিকে ফিলিস্তিনিরা পূর্ব জেরুজালেমকে তাদের সম্ভাব্য রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে দেখতে চায়। গাজা উপত্যকায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে পপুলার ফ্রন্টের শীর্ষস্থানীয় নেতা জামিল মাজহার বলেন, ‘আল-কুদস হচ্ছে ফিলিস্তিনের চিরন্তন রাজধানী এবং এই নগরীর এক ইঞ্চি ভূমিও ইসরাইলকে দেয়া হবে না।’ জেরুজালেমের আরবি নাম আল-কুদস।

একে দখলদার ইসরাইলের রাজধানী করার মার্কিন ও ইহুদিবাদী প্রচেষ্টায় সৌদি আরবসহ আরও কিছু আরব দেশের ইন্ধন দেয়ার তীব্র নিন্দা জানান বিক্ষোভকারীরা। এ সময় তাদের হাতে ‘সৌদি রাজতন্ত্র ধ্বংস হোক’ লেখা প্ল্যাকার্ড শোভা পায়।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর