হিংসার রাজনীতি

ইমরান হোসেন বাবু, সময়বাংলা, ঢাকা: ৮ই ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম জিয়া’র ‘জিয়া আরফানেজ ট্রাস্ট মামলা’র রায়, রায়ের দিন,রায়ের পরে কি হবে, তা নিয়ে উৎকণ্ঠায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনি, সেই উৎকণ্ঠা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে বিএনপির কয়েকশত নেতাকর্মীদেরকে। বিএনপির নির্বাহী কমিটির সভা করার জন্যে ঢাকার বিভিন্ন কনভেনশন সেন্টার,হল আবেদন করা হলেও তাতে অনুমতি দেয়নি আইনশৃঙ্খলা বাহিনি। শেষতক, হোটেল লা মেরিডিয়ানকে বেঁছে নিতে হয়েছে বিএনপিকে।

২০১৪র ভোটার বিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠন করার পর থেকেই বিরোধী মত দমনে ফ্যাসিবাদী আচরণ দেখিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ।সারাদেশে বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মী শিকার হয়েছে বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডের।

বামপন্থীদের আন্দোলনও কঠোর হাতে দমন করা হয়েছে, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র বিরোধী হরতালে ছোড়া হয়েছে রেকর্ড পরিমাণ রাবার বুলেট,টিয়ারশেল। কয়েকদিন আগেও ছাত্র ছাত্রীর উপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ, এছাড়াও গনতান্ত্রিক বহু আন্দোলনই দমন নীপিড়ন করে প্রতিহত করা হয়েছে। বিরোধী মত, বা দাবির বিপক্ষে দাড়িয়ে সরকার ফ্যাসিবাদী যে আচরণ দেখিয়েছে বতার সবচেয়ে বেশি শিকার হয়েছে বিএনপি।

সংসদেও কার্যকর বিরোধী দল নেই, রাজপথেও বিরোধী মত দমন করা হচ্ছে, একদলীয় আওয়ামী শাসন গড়ে তোলার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন সরকার। গনতান্ত্রিক চর্চার জন্যে যেই পদক্ষেপ বড় হুমকি।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন