৯৮ বিশ্বকাপের ফাইনাল ছিল পূর্বপরিকল্পিত!

১৯৯৮ বিশ্বকাপের আয়োজক ছিল ফ্রান্স। ফাইনালে ব্রাজিলকে ৩-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল দিদিয়ের দেশমের নেতৃত্বাধীন ফ্রান্স। শুক্রবার ফ্রান্সের প্রাক্তন ফুটবলার ও সাবেক উয়েফা প্রধান মিশেল প্লাতিনি স্বীকার করেছেন যে ৯৮ বিশ্বকাপের ফাইনাল যাতে ব্রাজিল ও ফ্রান্সের মধ্যে হয় সেজন্য তারা কৌশলের আশ্রয় নিয়েছিলেন।

কেমন ছিল সেই কৌশল? সাধারণত ড্রতে বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ পরে ‘এ’ গ্রুপে। কিন্তু সেবার নিয়মে কিছুটা পরিবর্তন এনে ফ্রান্সকে ‘এ’ গ্রুপে না রেখে রাখা হয় ‘সি’ গ্রুপে। আর ব্রাজিলকে রাখা হয় ‘এ’ গ্রুপে। যাতে উভয় দল গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হলে ফাইনালের আগে তাদের দেখা না হয়।

১৯৯৮ বিশ্বকাপের আয়োজক কমিটির কো-প্রেসিডেন্ট মিশেল প্লাতিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘যখন আমরা বিশ্বকাপের ক্যালেন্ডার প্রস্তুত করি তখন কিছুটা কৌশলের আশ্রয় নিয়েছিলাম। আসলে আপনি যখন আয়োজক দেশ হবেন এবং বিশ্বকাপের জন্য ছয় বছর ধরে প্রস্তুতি নিবেন তখন সবকিছু উপভোগ করতে চাইতেই পারেন। আপনি কী মনে করেন অন্যরা বিশ্বকাপ জয়ের জন্য এমন কিছু করেনি? সত্য বলতে কী ফ্রান্স এবং ব্রাজিল ফাইনাল খেলুক সেটা সবারই স্বপ্ন ছিল। শেষ পর্যন্ত এই দুটি দলই ফাইনাল খেলেছিল। বিষয়টা অনেকটা কাকতালীয় ব্যাপার ছিল।’

শুধু ফ্রান্স নয়, বিশ্বকাপের আয়োজক হিসেবে এর আগেও নিয়মে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছিল। ফ্রান্সের আগে ১৯৯০ বিশ্বকাপে ইতালি, তার আগে ১৯৬৬ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড নিয়মে পরিবর্তন এনেছিল। ১৯৯৬ ইউরোতেও ইংল্যান্ড নিয়মে পরিবর্তন এনেছিল।

ফ্রান্স ও ব্রাজিলের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচের একটি দৃশ্য

১৯৯৮ বিশ্বকাপে ব্রাজিল ‘এ’ গ্রুপের দুই ম্যাচ জিতে ও ১টিতে ড্র করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়। আর ফ্রান্স তিন ম্যাচের তিনটিতেই জিতে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলোতে যায়। শেষ ষোলোতে ব্রাজিল চিলিকে হারিয়ে ও ফ্রান্স প্যারাগুয়েকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে যায়। সেখানে ফ্রান্স টাইব্রেকারে ইতালিকে হারিয়ে ও ব্রাজিল ৩-২ গোলে ডেনমার্ককে হারিয়ে সেমিফাইনালে ওঠে। আর সেমিফাইনালে ব্রাজিল টাইব্রেকারে নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে ও ফ্রান্স ২-১ গোলে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে।

ফাইনালে জিনেদিন জিদানের জোড়া গোল ও পেতিতের গোলে ৩-০ ব্যবধানে ব্রাজিলকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয়।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর