একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ

সময় বাংলা, যুক্তরাষ্ট্র: নিউ ইয়র্কে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে বায়ান্নর ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন বাংলাদেশের সাবেক তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাবেক বৈদেশিক উপদেষ্টা এবং বিএনপির বিশেষ দূত জাহিদ এফ সরদার সাদী।

প্রতিবারের মতো এবছরও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মহান একুশের ভাষা শহীদদের প্রতি যথাযথ সম্মান ও শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ সোসাইটির আয়োজনে অস্থায়ী শহীদ মিনারের পাদদেশে এক সর্বজনীন আয়োজনে প্রানের আবেগে পুস্পস্তবক অর্পণ করেছে নিউ ইয়র্ক রাজ্যসহ অনান্ন রাজ্যের বাংলাদেশিরা। ঠিক ১২টা ১ মিনিটের মাহেন্দ্রক্ষণে বাংলাদেশি বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসমুহ ছাড়াও অগনিত প্রবাসী বাংলাদেশি স্বতঃস্ফূর্তভাবে একে একে পুস্প স্তবক অর্পণ করে।

সেসময় বাঙালির চেতনার রন্ধ্রে রন্ধ্রে বিকশিত থাকা আব্দুল গাফফার চৌধুরী রচিত সারা জাগানো “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি…” গানটির অবিনাশী সুরের মূর্ছনা বেজে ওঠতে থাকলে গোটা অস্থায়ী শহীদ মিনার প্রাঙ্গণটি বাংলা ভাষার প্রতি, বাংলা সংস্কৃতির প্রতি তথা ভাষার জন্যে জীবন উৎসর্গকারী বীর শহীদ জব্বার, সালাম, রফিক প্রমুখ দেশপ্রেমিকের প্রতি শ্রদ্ধায় ও ভালোবাসায় একটি সজীব বাংলাদেশে রূপান্তরিত হয়।

পুস্পার্ঘ অর্পণের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর দেলোয়ার হোসেন, সাবেক সহ-সভাপতি গিয়াস আহমেদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল, সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন ভুঁইয়া, নিউইর্য়ক সিটি বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা, বিএনপি নেতা সাঈদুর রহমান সাঈদ, আলী ইমাম শিকদার, রুহুল আমিন নাসির, নীরা রাব্বানী, মার্শাল মুরাদ, আবু সাঈদ আহমদ, আলমগীর মৃধা, কামাল উদ্দিন দিপু, সরোয়ার খান বাবু, রফিকুল ইসলাম ডালিম, আশরাফ হোসেন, আশিক মাহমুদ, আহাবাব হোসেন, মহিদুল ইসলাম মহিব, জাহাঙ্গীর সোহ্‌রাওয়ার্দী, বাবুল চৌধুরী, কাউসার আহমেদ, আমিনুর রহমান, মাসুম বিল্লাহ, মো: মহসিন, রুবেল গাজী, পরান চৌধুরী, জাফর ফরাজী, জাহিদ হায়দার বিশ্বাস, সিরাজুল ইসলাম ডালী, মাসুদ হোসেন, শাহাদাৎ হোসেন রাজু, বাসেত রহমান, সায়েদুল হক সায়েদ, সাঈদুর রহমান, শাহ্‌ আলম, মিজানুর রহমান মিজান, সাইফুর খান হারুন, রেজাউল আহাদ ভুঁইয়া, নাসিম খান, কাজী আমিনুল ইসলাম স্বপন, উত্তম বণিক, রাজীব আহমেদ, জীবন শফিক, নাসিম আহমদ, ছাইদুর খান ডিউক, এবিএম সিদ্দিক, আরশাদ খান, মো. হোসেন, ফজলে রাব্বী রাজীব, মো. কাউসার, তৌফিক মিয়াসহ যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সকল অঙ্গ সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী।পুস্পার্ঘ অর্পণ ছাড়াও এর আগে একুশের কবিতা আবৃত্তি ও আলোচনা পর্বে বাংলাদেশি সংগঠক, সাংস্কৃতিক কর্মী, কবি, আবৃত্তিকারগণ অংশগ্রহণ করেন।

আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর দেলোয়ার হোসেন, ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস থেকে বিভিন্ন ঘটনা ও প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। তারা পারিবারিক ও সামাজিকভাবে মাতৃভাষা বাংলার চর্চা এবং বাংলা সংস্কৃতিকে লালন ও ধারণের মাধ্যমে প্রবাসে মহান একুশের চেতনাকে আরও ছড়িয়ে দেয়ার আহবান জানান। তিনি বলেন, মাতৃভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য বাঙালির আত্মত্যাগের কাহিনী সারা পৃথিবীর মানুষ এখন অবগত। আর তাই জাতিসংঘ এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে। কাজেই এই সম্মানকে ধরে রাখতে ও বাংলা ভাষাকে নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার কথা উল্লেখ করেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন