নারীকর্মীর নিরাপত্তায় সৌদিতে যেতে পারবে পুরুষ সঙ্গী

সময় বাংলা,ঢাকা :

dhaka bsc picসৌদি আরবে নারী গৃহকর্মীদের নির্যাতন করা হয়, অনেক সময় বাধ্য করা হয় যৌনকর্মেও। এমন কথা এখন সবার মুখে মুখে। কিন্তু এমনটা মানতে নারাজ সরকার সংশ্লিষ্টরা। তবে ঘটনা সত্য অথবা মিথ্যা যাই হোক না কেন, নারীকর্মীরা এখন আর সৌদি আরবে যেতে আগ্রহী হচ্ছে না। আর সেই কারণে নানাভাবে প্রচার চালিয়েও কাঙ্ক্ষিতহারে নারীকর্মী পাঠাতে পারছে না বাংলাদেশ।

অবশ্য এবার বয়ে এলো একটি সুখবর। নিরাপত্তা ও নির্ভরতা দিতে এখন থেকে একজন নারীকর্মীর সঙ্গে একজন পুরুষকর্মীও সৌদি আরব যেতে পারবে। এক্ষেত্রে নারীদের মতোই বিনাখরচে কোনো নারীর নিকটাত্মীয় বা পরিচিত কোনো পুরুষ সঙ্গে যেতে পারবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর প্রবাসী কল্যাণ ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা জানান। এ প্রক্রিয়া খুব শিগগিরই শুরু হবে বলেও জানান তিনি।

নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, ‘আমরা সম্প্রতি সৌদি আরব সফরে গিয়ে সেদেশের শ্রমমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছি। তারা আমাদের কাছ থেকে ২ লাখ নারীকর্মী নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করলে আমরা সেখানে থাকা নারীদের নিরাপত্তাজনিত নানা সমস্যার কথা তুলে ধরি। তখন সে দেশের মন্ত্রী প্রত্যেক নারীরা যেন নিজেকে নিরাপদ মনে করে তাই তাদের সঙ্গে একজন করে নিকটাত্মীয় পুরুষ নেয়ার কথা বলেন। এক্ষেত্রে তারা যদি দুই লাখ নারীকর্মী নেয় তাহলে এর সঙ্গে দুই লাখ পুরুষকর্মীও যাবে।’

নিকটাত্মীয় বলতে মন্ত্রী জানান, সেই নারীর স্বামী, ভাই বা কাজিন অথবা এসব নিকটাত্মীয় না থাকলে যেকোনো পরিচিত পুরুষকর্মীকে নিয়ে যেতে পারবেন।

এ প্রক্রিয়া কবে শুরু হবে জানতে চাইলে নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, ‘আমরা ইতিমধ্যে আলোচনা করে এসেছি। এখন জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের সঙ্গে বসে আলোচনার মাধ্যমে এ প্রক্রিয়া সাইনিং (চুক্তি স্বাক্ষর) করলেই বিষয়টি চূড়ান্ত হবে। খুব শিগগিরই এ চুক্তি হবে বলে আশা করছি। এক্ষেত্রে নারীদের মতোই পুরুষদেরও কোনো অভিবাসন খরচ হবে না।’

এসময় প্রবাসী কল্যাণ সচিব খন্দকার ইফতেখার হায়দার বলেন, ‘যেসব নারীকর্মী সৌদিতে যাচ্ছে তাদের নিরাপত্তার স্বার্থেই আমরা এসব খাতে পুরুষকর্মী পাঠাতে চাই। যাতে করে নারীদের যেকোনো আপদ-বিপদে তারা পাশে দাঁড়াতে পারে। কারণ একজন নিকটাত্মীয় বা কোনো পরিচিত পুরুষ ভিনদেশের আশে-পাশে থাকলেও নারীরা সেখানে নিরাপদ বোধ করবে।’

ডোমেস্ট্রিক ওয়ার্কার (পুরুষ) খাতের বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, ‘ডোমেস্ট্রিক ১২টি খাতের মধ্যে ড্রাইভার, গার্ড, মালি, সুপারভাইজার অন্যতম।’

সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হজরত আলী, জাবেদ আহমেদ, বিএমইটির মহাপরিচালক বেগম শামসুন নাহারসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন