লিসবনে দেশীয় সংস্কৃতিকে পরিচিত করার লক্ষে দেশীয় পোশাকের প্রদর্শনী

>9216 portugalসময় বাংলা, পর্তুগাল :  জনাব ওয়েজ খান স্বপরিবারে গত তিন বছর থেকে পর্তুগাল প্রবাসী, বাড়ী খুলনা জেলায়। পেশাগত ভাবে তিনি বাংলাদেশ দূতাবাসের এক জন কর্মকর্তা, উনার সহধর্মিনী মিসেস শারমিন মৌ এক জন গৃহিনী। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ালেখা শেষ করে বর্তমানে তিনিও প্রবাসী। প্রবাসের শত কর্মব্যাস্ততার মাঝেও ভুলে জান নাই দেশের ভালবাসা এবং দেশের সংস্কৃতির কথা।
মহান একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে লিসবনের ”কলাকুশলী হাসান” সংগঠনের সহযোগীতায় বাংলাদেশীয় সংস্কৃতিকে পর্তুগিজ এবং পর্তুগালে বেড়ে উঠা নতুন প্রজন্মের কাছে পরিচিত করার জন্য মিসেস শারমিন মৌ এবং ”কলাকুশলী হাসান” পর্তুগিজ ছেলেরা, মেয়েরা সহ প্রবাসী বাংলাদেশ, ফ্রান্স, স্পেন, ও ব্রাজিল বাচ্চাদের সঙ্গে একটি বাংলাদেশী ঐতিহ্যবাহী ফ্যাশন শো আয়োজন করে।
পর্তুগাল প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য এটি একটি চমৎকার উদ্দেগ, যার ফলে বাংলাদেশীয় সংস্কৃতি ও পরিধানসমূহ যে মূলধারার ও অন্যান্য দেশের ব্যক্তিত্ব সঙ্গে একটি মহান ইন্টিগ্রেশন তৈরি করতে মিসেস শারমিন মৌ একজন প্রবাসী হিসেবে তা দেখিয়েছেন। অনুষ্ঠানের প্রধান আকর্ষণ ছিল- প্রবাসে বেড়ে উঠা বাংলাদেশী শিশু- কিশোরদের বিভিন্ন ডিজাইন এর পোশাক পরিধানের পাশাপাশি অন্য দেশের মডেলদের বাংলাদেশি পাজ্ঞাবী, গামছা, তাঁত ও জামদানী শাড়ীর পোশাক পরে মঞ্চে ওঠার বিষয়টি। আর এসব পোশাক ডিজাইন এবং অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশি ডিজাইনার শারমীন মৌ। 
পর্তুগালের নতুন প্রজন্মের কাছে এবং বিদেশীদের মাঝে বাংলাদেশের পোশাককে ও দেশীয় সংস্কৃতিকে পরিচিত করে তোলার লক্ষে শারমিন মৌর এই প্রচেষ্টা। প্রবাসে থেকেও দেশীয় সংস্কৃতিকে ধরে রাখার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার সাথে শারমিন মৌকে অনুষ্ঠানের শেষে পর্তুগালের কমিউনিটি ব্যাক্তিবর্গ গন অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি সব ধরনের সহযোগীতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।
সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন