অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্মানে সিডনিতে এনটিভির বর্ণাঢ্য উৎসব

15216 ntv sidnyসময় বাংলা, অস্ট্রেলিয়া:  গত ১৩ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) ভালবাসা দিবসকে সামনে রেখে রকডেল টাউন হলে উদযাপিত হলো বাংলাদেশের প্রথম এইএসও সনদপ্রাপ্ত আন্তর্জাতিক টেলিভিশন চ্যানেল এনটিভি উৎসব। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্মানে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়।

এই উৎসবের প্রধান অতিথি হিসেবে এনটিভির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে বাংলাদেশের কন্সুলার জেনারেল অ্যান্থনি কুরি ও ক্যানটারবেরি সিটি কাউন্সিলের কাউন্সিলর মাইকেল হাওয়ার্ড উপস্থিত ছিলেন।

সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শিবলি আবদুল্লাহ ও সামান্তার সাবলিল উপস্থাপনায় এই জমকালো অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন আবুল কালাম আজাদ। এরপর বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্থানীয় জনপ্রিয় ব্যান্ডদল স্পর্শ ‘বাংলাদেশ আমার বাংলাদেশ’, ‘আমি ভুল করেছি তোমায় ভালবেসে’সহ বেশ কিছু জনপ্রিয় দেশাত্মবোধক ও আধুনিক গান পরিবেশ করেন।

এ সময় পর্দায় ২০০৩ সালের ৩রা জুলাই থেকে ‘সময়ের সাথে আগামীর পথে’ স্লোগান দিয়ে শুরু হাওয়া এন টিভির নিজস্ব প্রোফাইল থেকে বিগত বছরগুলোর বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য ভিডিওচিত্রসহ বিগত ৩ বছরে এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার কার্যক্রমের উল্লেখযোগ্য অংশ দর্শকদের দেখানো হয়। সেই সঙ্গে এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার উৎসব উপলক্ষে প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যক্তিরা ধারণকৃত শুভেচ্ছা ও অভিনন্দনের ভিডিও ক্লিপও অনুষ্ঠানে দেখানো হয়।

মাগরিবের নামাজের বিরতির পর অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার সিইও রাশেদ শ্রাবণ উপস্থিত অতিথিরা ও দর্শকদের অভিনন্দন জানিয়ে অনুষ্ঠানে আসার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

বিশেষ অতিথিদের মধ্য থেকে বাংলাদেশের কন্সুলার জেনারেল অ্যান্থনি কুরি ও ক্যানটারবেরি সিটি কাউন্সিলের কাউন্সিলর মাইকেল হাওয়ার্ড তাদের সংক্ষিপ্ত ভাষণে প্রবাসে স্থানীয় এবং বহুসংস্কৃতির মিশ্রণে এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার আয়োজিত এই মহতী সন্ধ্যা এবং সৎ ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

অর্পিতা সোমের কোরিওগ্রাফির নাচে অংশ নিয়ে নুতন প্রজন্মের মিনহাজ ও মন্দিরা দর্শকদের বিমোহিত করে রাখে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এনটিভির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী বলেন, গত তিন বছর আগে এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার কার্যক্রম শুরু হবার পর প্রতি বছর তিনি এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পেরে আনন্দিত ও গর্বিত। আরও বেশি দর্শক ও শ্রোতা যেন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারেন সেজন্য তিনি আগামী বছরে এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার অনুষ্ঠান খোলা মাঠে করার জন্য কর্মকর্তাদের প্রতি অনুরোধ জানান। বিদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে দেশকে সম্পৃক্ত করে অস্ট্রেলিয়ার বিনিয়োগকারীদের কীভাবে দেশের প্রতি আগ্রহী করে তোলা যায় তিনি তার উপরও গুরুত্ব আরোপ করেন। সবশেষে অতীতের মতো ভবিষ্যতেও এনটিভি প্রবাসে নুতন প্রজন্মের পাশে থাকবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করে সবসময় এনটিভির সঙ্গে থাকার জন্য প্রবাসী দর্শক শ্রোতাদের আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানকে সার্বিক সহযোগিতার জন্য বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী শাহী জামান টিটুকে অ্যাপ্রেসিয়েশন ক্রেস্ট প্রদান করেন আপডেটবিডিনিউজডটকমের প্রধান সম্পাদক ও অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি রেজাউল হক। চারজন ছোট্ট সোনামণি রাফেল ড্র’তে তিনজন বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেন।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী ক্লোজআপ তারকা পুতুল দর্শকদের তুমুল করতালির মধ্য দিয়ে ‘ভালো আছি ভালো থেকো’ ‘ও আমার দেশের মাটি’সহ বেশকিছু দেশাত্মবোধক, আধুনিক অনুরোধের বেশ কিছু গান পরিবেশন করেন।

সবশেষে মঞ্চে গান পরিবেশন করেন পাওয়ার ভয়েস তারেক তুর্যয়। ‘বাবা বলে ছেলে নাম করবে’, ‘সেই তুমি কেন অচেনা হলে’সহ আধুনিক ও ব্যান্ডের গান পরিবেশন করেন। এই সময় উপস্থিত দর্শকরা গানের সঙ্গে গলা মিলিয়ে তুর্যয়কে অভিনন্দন জানান। যন্ত্রসঙ্গীতে সহায়তা করেছেন স্থানীয় রণজিৎ, তারিক, সোহেল, মিজান, ইমন প্রমুখ।

এছাড়াও এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার উৎসবে প্রবাসী বিশিষ্ট রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও মিডিয়ার বিশিষ্ট ব্যক্তি, সর্বস্তরের দর্শক ও শ্রোতা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য বিনামূল্যে অনুষ্ঠান প্রবেশের ব্যবস্থা ছিল।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি (রোববার) সন্ধ্যায় ভালবাসা দিবসে মেলবোর্নে এনটিভি অস্ট্রেলিয়া অনুরূপ একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল ও বিরোধী দল ফেডারেল লেবার পার্টির নেতা বিল শর্টেন এনটিভি অস্ট্রেলিয়ার উৎসব উপলক্ষে দর্শক ও কর্মকর্তাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল এক তার বার্তায় বলেন, ‘স্বাধীনতা, আশা, সম্মান এবং ঐক্য ও সহনশীল জাতি তৈরির প্রতি দায়িত্বই অস্ট্রেলিয়ার সফলতার মূলে। এই বিষয়গুলো অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশিদের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে এনটিভির মতো মিডিয়া। একই সঙ্গে বিশ্ব ও নিজ সংস্কৃতির সঙ্গে বাংলাদেশিদের যুক্ত রেখেছে এনটিভি। তিনি তার বার্তায় এনটিভির আরো সাফল্য কামনা করে সব দর্শক ও কর্মীকে ধন্যবাদ জানান এবং এনটিভি উৎসব অস্ট্রেলিয়া ২০১৬-এর শুভকামনা করেন।

অস্ট্রেলিয়ার বিরোধী দল ফেডারেল লেবার পার্টির নেতা বিল শর্টেন তার বার্তায় বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ায় কার্যালয় চালুর পর থেকেই এনটিভি অস্ট্রেলিয়া বহু সংস্কৃতিবাদ এবং অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশিদের চাহিদা মেটাতে কাজ করে আসছে। তার দল অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল লেবার পার্টি দেশের অভিবাসীদের অবদানের কথা সব সময়ই মনে রেখেছে। তিনি নিজেও মনে করেন, অভিবাসনই অস্ট্রেলিয়াকে সমৃদ্ধ ও উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছে।’ বার্তায় বিল শর্টেন অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশিদের শুভকামনাও জানান।

এছাড়াও এনটিভির উৎসব অস্ট্রেলিয়া উপলক্ষে প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যক্তিরা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। তাদের মধ্যে আছেন, অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের প্রেসিডেন্ট সিরাজুল হক, অস্ট্রেলিয়া বঙ্গবন্ধু পরিষদের উপদেষ্টা গামা আবদুল কাদির, বিদেশ বাংলা টেলিভিশন অস্ট্রেলিয়ার পরিচালক রহমতউল্লাহ, অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সদস্য সচিব ও বিদেশবাংলা২৪ডটকমের সম্পাদক মোহাম্মেদ আবদুল মতিন, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অফ নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রাক্তন সভাপতি অ্যাডভোকেট মোবারক হোসেন,কস্তুরী রেস্টুরেন্টের ও ফ্যামিলি নিডসের সত্ত্বাধিকারী কাইউম চৌধুরী, সেন্ট্রাল একজিকিউটিভ কমিটি এসএসডির মুন্নি চৌধুরী মেধা প্রমুখ।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন