গণতন্ত্র পুরোপুরি নির্বাসিত, আন্দোলন ছাড়া বিকল্প কোনো পথ নেই: মির্জা ফখরুল

mirja fakhrulসময় বাংলা, ঢাকা : নির্বাসিত গণতন্ত্রকে স্বরূপে ফেরাতে হলে আন্দোলন ছাড়া বিকল্প কোনো পথ নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম। এজন্য নতুন করে আন্দোলন শুরু করতে হবে বলেও মনে করেন তিনি।

আজ সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপি এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ফখরুল বলেন, গণতন্ত্র এখন পুরোপুরি নির্বাসিত। তিনি বলেন, দেশে এখন গণতন্ত্রের মোড়কে একদলীয় শাসন চলছে। যারা মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে তারাই গণতন্ত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে। তারা অতীতেও গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। হারানো গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হলে আন্দোলন ছাড়া বিকল্প কোনো পথ নেই।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, সরকার আমাদের কথা বলতে দেয় না। কাউন্সিল করারও জায়গা দিচ্ছে না। এসব বাধা অতিক্রম করে আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সকল গণতান্ত্রিক শক্তিকে একত্রিত করে আন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও মানুষের হারানো অধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে।

আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরী, শামসুজ্জামান দুদু, যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে দর্শকসারিতে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, আসাদুল হাবিব দুলু, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম ও শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ। বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি ও আসাদুল করিম শাহীন যৌথভাবে আজকের আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন