চট্রগ্রামে বিয়ের দিনে সৌদি প্রবাসী বর জয়নালের মৃত্যু

এমন পরিনিতি যেন অার কারো জীবনে না ঘটে : কনে পারভিন অাকতার

বর জয়নাল
বর জয়নাল

বিশেষ প্রতিনিধি, চট্রগ্রাম : নাজিরহাট কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা শাখার দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী পারভিন আকতার (১৮)।ফটিকছড়ি  বারমাসিয়া আব্দুল করিম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস সি পাশ করে কলেজের গন্ডিতে পা রাখতে না রাখতে পরিবারের ইচ্ছাতেই বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে ছেয়েছিলেন তিনি।সৌদি প্রবাসী প্রতিষ্ঠিত ছেলে আর দেখতে ভালো হওয়ায় পছন্দ করতে দ্বিধা করেননি হবো জীবনসঙ্গীকে। বিয়ের পাকাপোক্ত কথা হওয়ার পর থেকে হবো বরের দেওয়া মুঠোফোনে বেশ ক‘দিন কথাও হয় তার। এ ক‘দিনে হবো বরের সাথে হৃদতার সম্পর্ক হয়ে উঠে গভীর। কোনভাবেই মানতে পারছেননা তার হৃদতার মানুষটি আর নেই। কাঁদতে কাঁদতে মেয়েটি অনেকটা বাকরুদ্ধ।
ফটিকছড়িতে বিয়ের দিনে বরের মৃত্যু হওয়ার চাঞ্চল্যকর ঘটনার কনে পশ্চিম সুয়াবিল বারমাসিয়া গ্রামের পারভিন আকতারের সাথে বৃহস্পতিবার এ প্রতিবেদকের আলাপচারিতায় উঠে আসে তার এ কঠিন মূহুর্তটির কথা।
তিনি বলেন, জীবনে কখনো কল্পনা করতে পারিনি এমন মুহূর্তের মুখোমুখি হতে হবে। সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা এমন পরিনতি যেন আর কারো জীবনে না ঘটে।
হবো বর প্রবাসী জয়নালের সাথে তার শেষ কবে কথা হয়েছিল এমন প্রশ্নের জবাবে, পরিবার্রে সবার আদরের মেয়েটির ভাঙ্গা ভাঙ্গা কণ্ঠে বলেন, গায়ে হলুদের দিন মেডিকেলের যাওয়ার পূর্বে তার সাথে শেষ কথা হয়। তিনি একটি বারের জন্যও বলেনি তিনি এতো বেশি অসুস্থ। পরে আরো কয়েকবার কথা বলতে চেয়েছিলাম; কিন্তু তার বন্ধু ফোন ধরছিলেন বার বার। সারারাত গায়ে হলুদ আর মেহমানের আপ্যায়নে সময় পার হয়ে যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠে যখন পার্লারে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম তখনই দু:সংবাদটির খবর পেলাম।

এদিকে কনের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, ‘বাড়িটির সামনে এখনো বিয়ের সামিয়ানা টাঙ্গানো, পরিবারের সদস্যদের মুখগুলো ফ্যাকাসে হয়ে আছে। আদাপাকা ঘরটির এক কক্ষে বসে আছেন কনে পারভিন । স্বজনরা তাকে স্বাভাবিক হওয়ার জন্যে নানা সান্তনা দিয়ে যাচ্ছেন।
পারভিনের একমাত্র বড় ভাই বেলাল বলেন, ‘সে মানসিকভাবে খুবই ভেঙ্গে পড়েছে । তাকে স্বাভাবিক রাখার জন্য সব প্রচেষ্টা করে যাচ্ছি। সে মানসিকভাবে শক্ত হয়ে উঠলে তার বিয়ের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য গত ২৪শে ফেব্রুয়ারী বিয়ের দিন জয়নাল মৃত্যু বরণ করেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন