আ’লীগের সভাপতিমণ্ডলী সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ রাজাকার : নিক্সন চৌঃ

nixonবিশেষ প্রতিনিধি, ফরিদপুর : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ কে রাজাকার বলে আখ্যায়িত করেছেন ফরিদপুরের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন চৌধুরী)। নিক্সন চৌধুরী বলেন, তিনি (কাজী জাফরউল্লাহ) একাত্তর সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে বিভিন্নভাবে সহায়তা করেছিলেন। এখন তিনি ভাঙ্গা পৌর নির্বাচনে এলাকার চিহ্নিত রাজাকারের ছেলে আবু রেজা ফয়েজকে সমর্থন দিয়েছেন। রাজাকারপুত্র এখন আওয়ামী লীগের নৌকা নিয়ে লড়ছেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ভাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যানের কক্ষে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাদত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সংসদ সদস্য এসব কথা বলেন। এ সময় উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরী দাবি করেন, ‘জাফরউল্লাহ ঘোষণা দিয়েছেন ২০ মার্চ ১০টার মধ্যেই তিনি তাঁর সমর্থিত প্রাথীকে বিজয়ী বলে ঘোষণা দেবেন। আমি এটা হতে দেব না। প্রয়োজনে জাফরউল্লাহকে গৃহবন্দি করে রাখব।’

‘৫ জানুয়ারি জাফরউল্লাহকে ভাঙ্গার জনগণ বয়কট করেছিল। সে নির্বাচনে তিনি হেরে আবার একাত্তরের মতো মানুষ হত্যার রাজনীতি শুরু করেছেন আর তার দায় আওয়ামী লীগের ঘাড়ে চাপাতে চান।’

সংসদ সদস্য বলেন, ‘আমি বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য হয়ে এটা হতে দিতে পারি না।’

এ সময় নিক্সন চৌধুরী উপজেলা প্রশাসন ও দলীয় নেতাকর্মীদের নির্বাচন বিধিমালা অনুযায়ী কাজ করার আহ্বান জানান।

সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরী স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা অসুস্থ নেপাল সাহাকে দেখতে ভাঙ্গায় আসার কর্মসূচি দেন। কিন্তু কাজী জাফরউল্লাহর সমর্থক নেতাকর্মীরা সংসদ সদস্যকে ভাঙ্গায় আসতে দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা দেয়।

এ নিয়ে সকাল থেকেই দুপক্ষের সমর্থকরা উপজেলা সদরের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মিছিল-সমাবেশ করে। পরে ভাঙ্গা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আলমগীর হোসেন ও ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমানের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি সাময়িকভাবে নিয়ন্ত্রণে আসে। বর্তমানে ভাঙ্গা উপজেলায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন