কালীগঞ্জ পৌরনির্বাচনে বিএনপি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রচারনায় সরকার পন্থীদের বাধা

jhenaidoh, kaligonjসময় বাংলা, ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই প্রার্থীদের মাঝে উদ্বোগ আর উৎকন্ঠা বাড়ছে। বিএনপিসহ স্বতন্ত্র প্রার্থীরা প্রচার প্রচারণা চালাতে পারছেন না। রাতের আধারে তাদের পোষ্টার ছিড়ে ফেলা হচ্ছে। ভোটার, কর্মী ও সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে মারপিট করা হচ্ছে। এরপর রাতের বেলা পুলিশ প্রশাসন দিয়ে হয়রানী করা হচ্ছে।

ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বরাবর এক লিখিত অভিযোগে এ সব তথ্য জানিয়েছেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মোঃ মাসুদুর রহমান মন্টুর ভাই মনিরুজ্জামান মিঠু। তিনি লখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন নির্বাচনে আমার বড় ভাই মোঃ মাসুদুর রহমান মন্টু সতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হিসাবে নারিকেল গাছ প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেছেন। নির্বাচনের দিন তারিখ ঘোষনার পর থেকেই মন্টুর জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বান্বিত হয়ে নৌকা প্রতিকের কর্মীরা প্রতি নিয়ত আমাদের কর্মীদের উপর হামলা, মাইক দিয়ে প্রচার কালে বাঁধা প্রদান, পোষ্টার ছেড়া ও প্রশাসনিক ভাবে হয়রানির মত জঘন্যতম কাজ করে যাচ্ছে।

গত ৬ মার্চ কালীগঞ্জের চাচড়া ও পরদিন নিমতলা থানা রোডে নৌকা মার্কার মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব মকছেদ আলীর ছেলে সেন্টুর নেতৃীত্বে পোষ্টার ছেড়া হয় ও জোর পূর্বক পোষ্টার কেড়ে নেওয়া নিয়ে কর্মীদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হয়। গত ০৮ মার্চ আড়পাড়ায় মাজের নেতৃীত্বে মহিলা কর্মীদের মারপিঠ করা হয়। ৭ মার্চ সেন্টুর নেতৃীত্বে প্রচার মাইকের গাড়ীতে হামলা করে মাইকের তার ছিড়ে দেওয়া হয়। গত ০৮ মার্চ কর্মী সাহাব উদ্দীনকে তার ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান থেকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে গিয়ে মারপিট করা হয়। নারিকেল গাছ প্রতিকের সমর্থক ভাংড়ী পট্রির রবিউলকে পুলিশ দিয়ে হয়রানী করা হয়। আমার বড় ভাই প্রার্থী মাসুদুর রহমান মন্টু কালীগঞ্জে থেকে প্রচারণা চালাতে পারছে না।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয় কালীগঞ্জ থানার ওসি আনোয়ার হোসেন প্রায় আড়ায় বছর কালীগঞ্জ থানায় কর্মরত আছেন। তিনি স্থানীয় এমপির মদদপুষ্ট হওয়ায় নির্বাচন সুষ্ঠ হবে না। এমপির নির্দেশ পেয়ে ওসি বিরোধীদের দমন করছেন। পৌরসভার অন্যান্য মেয়র ও কাউন্সিলার প্রার্থীরা ওসি আতঙ্কে আতঙ্কিত। এই ওসিকে অপসরন না করলে নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে না বলে ভোটারা তাদের জানিয়েছেন।

ঝিনাইদহ ৪ আসনের এমপি প্রকাশ্যে নৌকা মার্কার ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছেন বলেও অভিযোগ করা হয়। মোচিকের মধ্যে বুধবার সভা করে নৌকায় ভোট চাওয়া হয়েছে। এ সব নিয়ে কালীগঞ্জ রিটানিং অফিসারের বরাবর অভিযোগ দাখিল করেও কোন কাজ হয়নি বলে অভিযোগ।

এদিকে বিএনপি প্রার্থী আতিয়ার রহমানের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে তাকে কোন ওয়ার্ডে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। প্রাচার মাইক ভাংচুর করা হচ্ছে। পোষ্টার ছিড়ে ফেলা হচ্ছে। পুলিশ দিয়ে সমর্থকদের হয়রানী করা হচ্ছে। এ সব বিষয়ে নির্বাচন অফিসার জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখ্য আগামী ২০ মার্চ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে বিএনপির আতিয়ার রহমান, আওয়ামীলীগের মকছেদ আলী, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আশরাফুজ্জামান লাল, মোঃ মাসুদুর রহমান মন্টু ও নুরুল ইসলাম প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন

এ বিভাগের আরো খবর