বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেল ‘ছিটকিনি

বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেল ‘ছিটকিনি’

বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেল 'ছিটকিনি'

সময় বাংলা ডেস্ক: সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত ছবি ছিটকিনি কোনো কাটছাঁট ছাড়াই সেন্সর সনদ পেয়েছে। ৭ আগস্ট যোজনা প্রোডাকশনস ও ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত এই ছবিটি পরিচালনা করেছেন সাজেদুল আউয়াল। কাহিনি ও চিত্রনাট্যও তার।

সাজেদুল আউয়াল বলেন, ছবির কাহিনি শীতকালের। কয়েক বছর ধরে শীতকালে দীর্ঘ শুটিং হয়েছে। পঞ্চগড় রেলস্টেশনে তিনি ১৯৮৩ সালে গিয়েছিলেন। তখনই তিনি ছিটকিনির চিত্রনাট্য লেখেন। এক অর্থে এটি তাঁর আত্মজৈবনিক কাহিনি।

পঞ্চগড় রেলস্টেশনের কর্মচারী কফিলের যক্ষ্মা হয়। কফিলের জন্য পাথরশ্রমিক ময়মুনার চরম ও নীরব আত্মত্যাগের মানবিক ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছিটকিনির কাহিনি আবর্তিত হয়। সাজেদুল আউয়াল বলেন, মৈমনসিংহ গীতিকার ‘মলুয়া’ পালায় মলুয়ার চরিত্র যেভাবে চিত্রিত হয়েছে, ছিটকিনিতে ময়মুনার চরিত্র ঠিক উল্টোভাবে চিত্রিত হয়েছে। তার মতে, চলচ্চিত্রে তিনি ‘উল্টোপালা’ রচনা করেছেন।

ছবিটিতে অভিনয় করেছেন রুনা খান, ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, আমিনুর রহমান মুকুল, মানস বন্দ্যোপাধ্যায়, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, মুসতাগিসুর রহমান বাবু, রুবলী চৌধুরী, জহিরুজ্জামান, বাউল রইসউদ্দীন সরকার, সাজাহান বাউল, সরকার হায়দার, মোস্তাক, শিশুশিল্পী আপন। একটি অংশে ‘মলুয়া’ পালা পরিবেশন করেন কেন্দুয়ার পালাশিল্পী দিলু বয়াতি ও তার দল।

পরিচালক তার দুই অকালপ্রয়াত বন্ধু চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীরকে চলচ্চিত্রটি উৎসর্গ করেছেন। তিনি বলেন, শিগগিরই এটি মুক্তি পাবে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন